মঙ্গলবার, ০৭ জুলাই ২০২০
logo
হাজীগঞ্জে মিঠানিয়া খাল কৌশলে দখল হচ্ছে ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্লান্ট হুমকির মুখে
প্রকাশ : ২৫ মার্চ, ২০১৭ ১১:৩৯:৪৯
প্রিন্টঅ-অ+
চাঁদপুর ওয়েব
চাঁদপুর: হাজীগঞ্জের মিঠানিয়া খাল। একেবারে ডাকাতিয়া নদী থেকে উৎপত্তি হয়ে চাঁদপুর-কুমিল্লা আঞ্চলিক মহাসড়ক ও চাঁদপুর-লাকসাম রেল সড়ক ভেদ করে চলে গেছে হাজীগঞ্জ উপজেলার উত্তর এলাকায়। এ অঞ্চলের সেচ ও বর্ষা মৌসুমে পানি নিষ্কাশনের জন্যে এই খাল গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে। বেশ ক' বছর ধরে হাজীগঞ্জ পৌর এলাকাসহ তৎসংলগ্ন এলাকাসমূহের ভূমিখেকোদের লোলুপ দৃষ্টি খালের দিকে আকৃষ্ট হওয়ায় খালের বেশ কিছু অংশ কৌশলে দখল করে নিচ্ছে তারা। খাল ভরাট করার কারণে হুমকির মুখে পড়ার আশঙ্কা হাজীগঞ্জ পৌরসভার ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্লান্টটি। খালটি সরকারের খাসের খাল বলে চাঁদপুর কণ্ঠকে নিশ্চিত করেছেন হাজীগঞ্জ পৌরসভার উপ-সহকারী প্রকৌশলী মাহবুব রশিদ।


সরজমিনে দেখা যায়, হাজীগঞ্জ পৌরসভার খাটরা বিলওয়াই এলাকাস্থ পেপসি ঘাটের পূর্ব অংশ দিয়ে ডাকাতিয়া নদী থেকে শুরু হয়ে চাঁদপুর-কুমিল্লা আঞ্চলিক মহাসড়কের মিঠানিয়া সেতুর নিচ হয়ে উত্তরের মাঠ ধরে চাঁদপুর-লাকসাম রেলসড়ক ভেদ করেছে খালটি। ঠিক সুদিয়া হয়ে খালটি চলে গেছে কালচোঁ উত্তর হয়ে কচুয়ার দিকে। প্রায় অর্ধশত গ্রাম ভেদ করে চলে যাওয়া এই খালের খাটরা বিলওয়াই এলাকা দখলদারের লোলুপ দৃষ্টিতে পড়ে। যার কারণে দিন দিন কৌশলে দখল হয়ে যাচ্ছে মিঠানিয়া খালটি।


ডাকাতিয়া নদী থেকে এই খালের উৎপত্তি। উৎপত্তিস্থলের সামান্য উত্তরে আসলে চোখে পড়ে খালের প্রায় ৮০ ভাগ অংশের তলদেশ ভেসে উঠেছে। এর মধ্যে খালের পূর্ব অংশের অধিকাংশ অংশে কৌশলে দখল স্পষ্টত লক্ষ্যণীয়। দখলের আরো কৌশল চোখে পড়ে মিঠানিয়া সেতুর দক্ষিণ অংশে। বিশেষ করে মিডওয়ে মেডিকেল সেন্টারের পশ্চিমের দেয়াল ঘেঁষে ময়লা আবর্জনা ফেলার কারণে খালের প্রায় অর্ধেকটা ভরাট হয়ে গেছে। কৌশলে দখলের এই প্রক্রিয়া রেল সড়ক পর্যন্ত রয়েছে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান।


স্থানীয়দের সূত্রে জানা যায়, মিঠানিয়া খালটি স্বাধীনতা যুদ্ধের অনেক স্মৃতি বহন করছে। খাটরা বিলওয়াই এলাকার মিঠানিয়া সেতু ও তৎসংলগ্ন এলাকায় মুক্তিবাহিনী পাক হানাদার বাহিনীর সাথে সরাসরি সম্মুখ যুদ্ধে অংশ নেয়। মিঠানিয়া সেতু ও মিঠানিয়া খালটি ছিলো মুক্তিবাহিনী ও পাকবাহিনীর কাছে টার্নিং পয়েন্ট। সেই খালটি দখলের কারণে উপজেলার মানচিত্র থেকে মুক্তিযুদ্ধের বহু স্মৃতি হারিয়ে যাবার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।


হাজীগঞ্জ পৌরসভা সূত্রে জানা যায়, হাজীগঞ্জ পৌরবাসীর আর্সেনিকমুক্ত সুপেয় পানির ব্যবস্থার লক্ষ্যে জমির দাম ছাড়া প্রায় পাঁচ কোটি টাকা ব্যয়ে টেন্ডার হয়েছে ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্লান্টের। টেন্ডার শেষে দরপত্র মূল্যায়নের কাজ চলছে। এই প্লান্টটি বসছে মিঠানিয়া সেতুর উত্তর পাশে পৌর গোরস্থান ও মিঠানিয়া খালের পাশে। মিঠানিয়া খালের মাধ্যমে ডাকাতিয়া নদী থেকে প্রায় দু' কিলোমিটার দূরে পানি এনে ট্রিটমেন্টের মাধ্যমে আর্সেনিকমুক্তসহ পানিকে জীবাণুমুক্ত করে পৌরবাসীকে পাইপের মাধ্যমে সঞ্চালন করা হবে। এই ট্রিটমেন্ট প্লান্টটি করছে হাজীগঞ্জ পৌরসভা।


এদিকে মিঠানিয়া খালটি পৌর এলাকার অভ্যন্তরে হওয়ায় খালটি দখল হয়ে গেলে ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্লান্ট হুমকির মুখে পড়বে বলে পৌর মেয়র আ.স.ম. মাহবুব উল আলম লিপন চাঁদপুর কণ্ঠকে জানান। তিনি বলেন, সহকারী কমিশনার (ভূমি)'র সাথে সমন্বয় করে খালটি উদ্ধার কাজ শুরু হবে। প্রয়োজন হলে খালটি খননসহ সংস্কার করা হবে। এ বিষয়ে আমরা সর্বোচ্চ কঠোর হতে বাধ্য হবো।


উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ শেখ ছাদেক বলেন, সরকারি খাল দখলকারীর বিরুদ্ধে আমরা আইনী প্রক্রিয়ায় যাবো। প্রয়োজনবোধে খাল এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে খাল উদ্ধার করা হবে।

চাঁদপুর : স্থানীয় সংবাদ এর আরো খবর