শনিবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৯
logo
হাইমচরের নূর বাজারে অগ্নিকান্ডের রহস্য উদ্ঘাটন অগ্নি সংযোগকারী আটক
টাকা চুরি করে ঘটনা ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করতেই দুষ্কৃতকারীর এ অপকর্ম শাস্তির দাবিতে ব্যবসায়ীদের বিক্ষোভ
প্রকাশ : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১১:১৩:৫৬
প্রিন্টঅ-অ+
চাঁদপুর ওয়েব
চাঁদপুর:হাইমচর উপজেলার ৪নং নীলকমল ইউনিয়নের নূর বাজারে গত ১৭ ফেব্রুয়ারি দিবাগত গভীর রাতে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের রহস্য উদ্ঘাটন হয়েছে। অগি্ন সংযোগকারী বাজারের ঔষধ বিক্রেতা গ্রাম্য ডাক্তার আরিফ আখনকে আটক করা হয়েছে। এ দুষ্কৃতকারীর শাস্তির দাবিতে ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসী বিক্ষোভ করেছে। এ ঘটনায় বাজার ব্যবসায়ী কমিটির সভাপতি তোফাজ্জল মোল্লা হাইমচর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। আটক দুষ্কৃতকারী আরিফ অগি্ন সংযোগ করার কথা স্বীকার করে জানিয়েছে, সে ওই রাতে একটি দোকান থেকে টাকা চুরি করে ঘটনা ভিন্ন দিকে প্রবাহিত করতে এ অগি্ন সংযোগের ঘটনা ঘটায়।


গত ১৭ ফেব্রুয়ারি দিবাগত রাত দেড়টায় হাইমচরের নীলকমল ইউনিয়নের নূর বাজারে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ১১টি দোকান পুড়ে ছাই হয়ে যায়। ব্যবসায়ীদের প্রায় ১ কোটি টাকার মালামাল পুড়ে যায়। এদিকে এ বাজারের ঔষধ বিক্রেতা ফরিদগঞ্জ উপজেলার নলডুগি গ্রামের মৃত হাসিম আখনের ছেলে আরিফ আখনের আচরণ সন্দেহজনক হলে তাকে ব্যবসায়ীরা নজরদারির মধ্যে রাখে। গত ২৩ ফেব্রুয়ারি বিকেল ৩টায় স্থানীয় ইউপি সদস্য বাচ্চু মিয়া সরকার আরিফকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করলে তার নিকট আরিফ অগি্ন সংযোগ করার কথা স্বীকার করে। আরিফ জানায়, সে ১৭ ফেব্রুয়ারি রাতে বাজারের সার ব্যবসায়ী দাদনকে ক্যাশে মোটা অংকের টাকা রাখতে দেখে। এ টাকা চুরির উদ্দেশ্যে আরিফ ওই রাতেই দাদনের দোকানে ঢুকে টাকা নেয়ার পর তার মাথায় আসে দোকান পুড়িয়ে দিলে টাকা চুরির বিষয়টি কেউ জানতে পারবে না। তাৎক্ষণিক সে দাদনের সারের দোকানের পেছনে থাকা পাটের মধ্যে আগুন ধরিয়ে দেয়। আর সে আগুনই আশপাশে ছড়িয়ে বাজারের ১১টি দোকান পুড়ে ছাই হয়ে যায়।


এদিকে বাজারের ব্যবসায়ীরা আগুন লাগার সংবাদ পেয়ে বাজারে এসে আরিফের ঔষধ দোকানের সার্টার খোলা এবং তাকে জাগ্রত অবস্থায় দেখে সন্দেহ হয়। এ সন্দেহ থেকেই গত ২৩ ফেব্রুয়ারি স্থানীয় ইউপি সদস্য বাচ্চু মিয়া সরকার আরিফকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে অগি্ন সংযোগের কথা স্বীকার করে। সে বাচ্চু সরকারের কাছে তাকে জনরোষ থেকে রক্ষার আকুতি জানায়। এদিকে কৌশলে বাচ্চু সরকার আরিফের স্বীকারোক্তির বিষয়টি ভিডিও করে রাখেন। পরে তিনি হাইমচর থানা পুলিশকে বিষয়টি জানালে গতকাল ২৪ ফেব্রুয়ারি সকালে পুলিশ বাজারে গিয়ে আরিফকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। অভিযুক্ত দুষ্কৃতকারী আরিফের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়ে বাজারের ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসী বিক্ষোভ করেছে।


এ বিষয়ে হাইমচর থানার এএসআই আব্দুস সালাম সাংবাদিকদের জানান, স্থানীয় ইউপি সদস্য বাচ্চু মিয়া ও বাজার ব্যবসায়ীরা অগ্নিকান্ডের সাথে আরিফ জড়িত থাকার সংবাদ হাইমচর থানায় দিলে ওসি স্যারের নির্দেশে আমি সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে গিয়ে আরিফকে আটক করে থানায় নিয়ে আসি। পরবর্তী আইনি প্রক্রিয়া চলমান।

চাঁদপুর : স্থানীয় সংবাদ এর আরো খবর