মঙ্গলবার, ১২ নভেম্বর ২০১৯
logo
নীলকমল ওসমানিয়া হাইস্কুলের ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় ছাত্রদের পিঠের ওপর দিয়ে হেঁটে যাওয়ার অপরাধ
হাইমচর উপজেলা চেয়ারম্যান নুর হোসেন পাটোয়ারী দলীয় পদ থেকে সাময়িক বহিষ্কার
প্রকাশ : ০৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০৮:২১:৩৫
প্রিন্টঅ-অ+
চাঁদপুর ওয়েব
চাঁদপুর:বাংলাদেশের সবচেয়ে আলোচিত ও সমালোচিত হাইমচর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নুর হোসেন পাটোয়ারী। তার বিরুদ্ধে থানায় মামলা ও বিভাগীয় তদন্ত কমিটি গঠন শেষে অবশেষে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, হাইমচর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদ থেকেও সাময়িক বহিষ্কার হলেন। আলোচিত উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নুর হোসেন পাটোয়ারী গত ৩০ জানুয়ারি হাইমচর উপজেলার নীলকমল ওসমানিয়া হাইস্কুলের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে অংশ নিয়ে বিদ্যালয় ছাত্রদের তৈরি মানব সেতুর উপর দিয়ে জুতা পায়ে হেঁটে পার হন। ওই সময় তিনি খুব হাস্যোজ্জ্বলভাবেই শিক্ষার্থীদের তৈরি মানব সেতুর ওপর দিয়ে বীরদর্পে হেঁটে পার হয়েছিলেন। কিন্তু বর্তমান তথ্য প্রযুক্তির যুগে মানব সেতুতে পার হওয়া দৃশ্যটি মোবাইলে ধারণ করে ফেসবুকে ছেড়ে দেয়া হয়। পরবর্তীকালে বিষয়টি দেশব্যাপী আলোচনা ও সমালোচনার ঝড় উঠে। এমনকি হাইমচর উপজেলায়ও এর প্রতিবাদ করে আওয়ামী লীগের একাংশ ও বিএনপিসহ কিছু সংখ্যক নেতা-কর্মী ঝাড়– মিছিল থেকে শুরু করে প্রতিবাদ জানাতে থাকে।
            অন্যদিকে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বিষয়টি তদন্তের জন্যে চট্টগ্রাম বিভাগের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার ও অতিরিক্ত সচিব সৈয়দা সরোয়ার জাহানকে আহ্বায়ক করে একটি তদন্ত টিম গঠন করেন। ওই তদন্ত টিমটি দ্রুত ঘটনাস্থলে এসে তাদের তদন্ত কার্যক্রম শুরু করেন। এদিকে এক শিক্ষার্থীর অভিভাবক বাদী হয়ে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ নুর হোসেন পাটোয়ারীকে প্রধান আসামী করে ৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে। ওই মামলায় আরো অভিযুক্ত আসামীরা হলেন ঃ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোশারফ হোসেন, বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি হুমায়ুন পাটোয়ারী, সদস্য মুনসুর আহমেদ ও এমএ বাশার।
            গতকাল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সেতু ও পরিবহন মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের তাকে হাইমচর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদ থেকে সাময়িকভাবে বহিষ্কার করেছেন বলে সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেছেন।
            হাইমচর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নুর হোসেন পাটোয়ারী ঘটনার জন্যে স্থানীয় দৈনিক  পত্রিকা ও বেশ ক’টি স্যাটেলাইট চ্যানেলে দুঃখ প্রকাশ ও ক্ষমা চেয়ে বিবৃতি দিয়েছেন। অন্যদিকে এ ঘটনাটি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার জন্যে হাইমচর উপজেলায় অবস্থানকারী উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান শাহজাহান পেদা, হাইমচর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোতালেব জমাদার এবং বিএনপি দলীয় ইউপি চেয়ারম্যান জলিল মাস্টারসহ বেশ কিছু নেতা সাধারণ মানুষকে ক্ষেপিয়ে বিক্ষোভ সমাবেশ ও ঝাড়– মিছিল করেছেন। এমনকি এরা হাইমচর উপজেলা আওয়ামী লীগের অফিস হামলা চালিয়ে ভাংচুর করেছে বলেও স্থানীয় বেশ ক’জন ব্যবসায়ী জানিয়েছেন। ওই হামলায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার ছবিও ভাংচুর করে। যদিও এ ব্যাপারে স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বা প্রশাসনের পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত বিষয়টি তলিয়ে দেখা হয়নি।
 

চাঁদপুর : স্থানীয় সংবাদ এর আরো খবর