রোববার, ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯
logo
চাঁদপুরে জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন ২য় রাউন্ড
প্রকাশ : ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬ ১২:৪৫:৪৪
প্রিন্টঅ-অ+
চাঁদপুর ওয়েব
চাঁদপুর: শিশুর অন্ধত্ব প্রতিরোধ, শারীরিক বিকাশ, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি ও শিশু মৃত্যুর ঝুঁকি কমানোর লক্ষ্যে সারাদেশের ন্যায় চাঁদপুরে জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন-১৬ এর ২য় রাউন্ড সম্পন্ন হয়েছে। গতকাল ১০ ডিসেম্বর শনিবার সকাল ৮টায় চাঁদপুর পৌর সভার আয়োজনে জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ ক্যাম্পেইন’ এর উদ্বোধন করেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র নাছির উদ্দিন আহমেদ।
    এ সময় উপস্থিত ছিলেন, ঢাকা মহাখালী স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহা পরিচালক ডা. শাহনেওয়াজ খান, সিভিল সার্জন আলহাজ¦ ডা. সাইফুর রহমান, জেলা পরিষদ নির্বাচনের চেয়ারম্যান প্রার্থী নূরুল আমিন রুহুল, পৌরসভার সচিব আবুল কালাম ভূঁইয়া, সিভিল সার্জন কার্যালয়ের মেডিকেল অফিসার ডা. আশ্রাফ আহমেদ চৌধুরী, কাউন্সিলর মামুনুর রহমান দোলন, ফরিদা ইলিয়াছ, ইপিআই সুপারভাইজার মো. হানিফ গাজী, ভ্যাকসিনেটর আবু নাছের ভূঁইয়া প্রমুখ।
    চাঁদপুর পৌরসভার থেকে পাওয়া তথ্য মতে, এ বছর পৌর এলাকায় ৯৫ টি ও ভ্রাম্যমান ৩টি ক্যাম্পে  ২০ হাজার শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানোর লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়। এর মধ্যে ১ থকে ৫ বছর ১৮ হাজার ও ৬ মাস থেকে ১১ মাস পর্যন্ত ২ হাজার ১শ’ শিশু।
    সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ৯৫ টি ক্যাম্পে ১১জন সুপারভাইজার, ২শ’ ৮৫ জন স্বেচ্ছাসেবী ১৯ হাজার ৭শ’ ৩৬ জন শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানো হয়েছে। এরমধ্যে ১ থেকে ৫ বছরের শিশুর সংখ্যা ১৭ হাজার ৯শ’ ৩ জন এবং ৬ থেকে ১১ মাসের শিশুর সংখ্যা ১ হাজার ৮শ’ ৩৩ জন।
    উল্লেখ্য, চাঁদপুর জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, গতকাল ১০ ডিসেম্বর সারাদেশে একযোগে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে দেশের ৬ থেকে ১১ মাস বয়সী সকল শিশুকে ১ লক্ষ (আইইউ) একটি নীল রঙের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল এবং ১২ থেকে ৫৯ মাস বয়সী সকল শিশুকে ২ লক্ষ (আইইউ) একটি লাল রঙের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল নিকটবর্তী টিকাদান কেন্দ্রে খাওয়ানো হবে। চাঁদপুর জেলার ৮ উপজেলায় সর্বমোট ২ লাখ ৯৭ হাজার ৩শ’ ৩২ জন শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হয়েছে। এর মধ্যে ৬ থেকে ১১ মাস বয়সী শিশুর সংখ্যা ৩২ হাজার ৪শ’ ৬৮ জন এবং ১২ থেকে ৫৯ মাস বয়সী শিশুর সংখ্যা ২ লাখ ৬৮ হাজার ৮শ’ ৬৪ জন। এ ক্যাম্পেইনটি সফল করার জন্য  ২ হাজার ২শ’ ৬১টি কেন্দ্রে সর্বমোট ৬ হাজার ৭শ’ ৮৩ জন জনবল কাজ করেন। এর মধ্যে স্বাস্থ্য সহকারী ৩শ’ ৪১ জন, পারিবারিক কল্যান সহকারি ৪শ’ ৮০জন, সিএইচসিপি ১শ’ ৯২ জন এবং স্বেচ্ছাসেবী ৫ হাজার ৭শ’ ৭০ জন। প্রতিটি টিকাদান কেন্দ্রে ৩ সদস্য বিশিষ্ট দল সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হয়েছে।

চাঁদপুর : স্থানীয় সংবাদ এর আরো খবর