মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯
logo
মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলার রজতজয়ন্তীর বাকি মাত্র ৪ দিন
চাঁদপুর হাসান আলী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে মেলার প্রস্তুতি প্রায় শেষ
প্রকাশ : ২৭ নভেম্বর, ২০১৬ ১৫:৩৬:৫৩
প্রিন্টঅ-অ+
চাঁদপুর ওয়েব
চাঁদপুর: চাঁদপুরে মাসব্যাপী মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলার মাঠের প্রস্তুতি শেষ পর্যায়। রজতজয়ন্তীর আর মাত্র বাকি ৪ দিন। পাশাপাশি সাংস্কৃতিক ও নাট্য সংগঠনগুলো তাদের কর্মকা- নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়েছে।
এ বছর মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা গৌরবের ২৫ বছর রজতজয়ন্তী পালনের ব্যাপক প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। আর ৪ দিন পর ১ ডিসেম্বর থেকে মাসব্যাপী মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা শুরু হচ্ছে। মহান মুক্তিযুদ্ধকালীন সময়ের স্মৃতি বিজড়িত হাসান আলী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বিগত বছরের মতো এ বছরও মেলার আয়োজন প্রায় শেষ। ১৯৯২ সাল থেকে এ মাঠে চাঁদপুরের মুক্তিযোদ্ধা, সাংস্কৃতিক, নাট্যকর্মী, সাংবাদিকসহ বিভিন্ন পেশার মানুষের সমন্বয়ে শহীদ জননী জাহানারা ইমামের নির্দেশে এ বিজয় মেলার আয়োজন করা হয়। সে ধারাবাহিকতায় চাঁদপুরে মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা শুরু হয়ে আসছে। বহু ঝড়-ঝাপটায় দেশের বিভিন্ন জেলার বিজয় মেলা বন্ধ হয়ে গিয়েছে। তবে চাঁদপুরের আপামর জনগণের আন্তরিকতা ও সহায়তায় বিজয় মেলা আজ গৌরবের ২৫ বছরে এসে দাঁড়িয়েছে। লাল সবুজের কাপড়ে পুরো মাঠ সেজেছে। মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা উদ্যাপনকল্পে সকল প্রস্তুতি দ্রুততার সাথে এগিয়ে গেছে।
বিজয় মেলার চেয়ারম্যান অ্যাডঃ জহিরুল ইসলাম ও মহাসচিব শহীদ পাটোয়ারী জানান, এ বছর বিজয় মেলা যেহেতু রজতজয়ন্তী পূর্তি তাই আমরা বিজয় মেলাকে সুন্দর করতে সর্বাত্মক চেষ্টা করছি। জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের সর্বাত্মক সহযোগিতা থাকবে। মাঠের নিরাপত্তার জন্যে মেলার অভ্যন্তরে ও বাইরে গোপনীয় ক্যামেরা বিগত বছরের মতো এ বছরও স্থাপন করা হচ্ছে। শহীদ মুক্তিযোদ্ধা সড়কে যানজট মুক্ত রাখতে ও দূর-দূরান্ত থেকে আসা বিজয় মেলা দর্শকদের নিরাপদে পথ চলতে রাস্তার দু’ পাশের মিনি স্টল বন্ধ রাখা হয়েছে। তাছাড়া শিশুদের বিনোদনের জন্যে বিগত বছরের মতো এ বছরও পুতুল নাচ, নাগরদোলা ও মেরি ঘোড়ার চক্কর আজ-কালের মধ্যে মাঠে স্থাপন করা হবে। বিজয় মেলার পবিত্রতা আমাদের সবাইকে ধরে রাখতে হবে। গত বছর মুক্তিযুদ্ধের মেলার ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের কথা চিন্তা করে এ বছর স্টল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।
অপরদিকে মাঠ প্রস্তুতের বিষয়ে মাঠ ও মঞ্চ পরিষদের আহ্বায়ক হারুন আল রশীদ জানান, মাঠের স্টল নির্মাণ কাজ শেষ প্রায়। এ বছর মোট ১শ’ ৩৪টি বাণিজ্যিক স্টল নির্মাণ করা হয়েছে। মাঠে প্রবেশের প্রধান গেট ছাড়াও আরো ৩টি গেট নির্মাণ করা হয়েছে মেলা মাঠের ভিড় সামলাতে। তাছাড়া মাঠের পূর্ব ও পশ্চিম পাশের স্টলের মাঝ বরাবর দর্শকদের জন্য ২টি প্রবেশ পথ করা হয়েছে। এ বছরও মেলা মাঠে সাংস্কৃতিক কর্মকা- পরিচালনা করতে বিগত বছরের মতো সবচে’ বড় মঞ্চ তৈরি করা হয়েছে। মুক্তিযুদ্ধের দলিল হিসেবে প্রদর্শনীর জন্য একটি স্মৃতি সংরক্ষণ স্টল স্থাপন করা হয়েছে। তাছাড়া ১টি দাপ্তরিক স্টল, ১টি আইনশৃঙ্খলা স্টল, ১টি অর্থ ও কূপন কাউন্টার ও ফায়ার সার্ভিস কক্ষ তৈরি করা হচ্ছে।
এদিকে নাট্য ও সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলো বিজয় মেলায় তাদের নাটক ও সাংস্কৃতিক কর্মকা- পরিবেশনের জন্য প্রস্তুতি নিয়ে মহড়া দিচ্ছে বলে নাটক ও সাংস্কৃতিক পরিষদের আহ্বায়ক তপন সরকার ও সদস্য সচিব সাংবাদিক শরীফ চৌধুরী জানান। এ বছর বিজয় মেলা মঞ্চে উপজেলার কোনো সংগঠন অনুষ্ঠান করবে না। ৪০টি সাংস্কৃতিক ও নাট্য সংগঠন মাসব্যাপী বিজয় মেলার মঞ্চে স্বাধীনতা ভিত্তিক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক নাটক মঞ্চস্থ করবে। তবে মডান ডান্স জাতীয় কোনো নৃত্য পরিবেশন করতে পারবে না।
এ বছর চাঁদপুর ও অন্য জেলার ৮টি নাট্য সংগঠন মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক নাটক মঞ্চস্থ করবে। সংগঠনগুলো হলো ঃ মুন্সীগঞ্জ হিরণ কিরণ থিয়েটার, নারায়ণগঞ্জ সংশপ্তক নাট্যদল, চাঁদপুর ড্রামা, মেঘনা থিয়েটার, অনন্যা নাট্যগোষ্ঠী ও বর্ণচোরা নাট্যগোষ্ঠী নাটক পরিবেশন করবে। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করবে মুক্তিযোদ্ধা সাংস্কৃতিক কমান্ড, নৃত্যধারা, হরিজন শিল্পী গোষ্ঠী, বাংলার মুখ সাংস্কৃতিক সংগঠন, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট, উদীচী জেলা সংসদ, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, রক্সি মিউজিক্যাল গ্রুপ, রঙ্গের ঢোল, চাঁদপুর ললিতকলা, নতুন কুঁড়ি ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সংগঠন, জেলা শিল্পকলা একাডেমি, চাঁদপুর মঞ্চ, তারুণ্য সাংস্কৃতিক সংগঠন, সঙ্গীত নিকেতন, স্বদেশ সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সংগঠন, উদয়ন কচি-কাঁচার মেলা, সুরধ্বনি সঙ্গীত একাডেমি, সপ্তরূপা নৃত্য শিক্ষালয়, বঙ্গবন্ধু আবৃত্তি পরিষদ, সপ্তসুর সঙ্গীত একাডেমি, স্বপ্নকুড়ি সাংস্কৃতিক সংগঠন, রংধনু সাংস্কৃতিক সংগঠন, বিবেকানন্দ যুব সংঘ, বঙ্গবন্ধু শিশু-কিশোর মেলা, নৃত্যাঙ্গন, উদয়ন সঙ্গীত বিদ্যালয়, অগ্নিবীণা সাংস্কৃতিক সংগঠন, খেলাঘর আসর, চতুরঙ্গ সাংস্কৃতিক সংগঠন, সাংস্কৃতিক চর্চা কেন্দ্র। ১৯ দিন বীর মুক্তিযোদ্ধাদের স্মৃতিচারণ করবে।

চাঁদপুর : স্থানীয় সংবাদ এর আরো খবর