বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯
logo
মন্ত্রী পরিষদ বিভাগ এটুআইর সহায়তায় চাঁদপুরে চট্টগ্রাম বিভাগীয় ইনোভেশন সার্কেলে সচিব এনএম জিয়াউল আলম
ইলিশ রক্ষায় চাঁদপুর জেলায় যে কর্মকাণ্ড পরিচালিত হয়েছে তা প্রশংসনীয়
প্রকাশ : ২৪ নভেম্বর, ২০১৬ ১০:৫৬:৫৭
প্রিন্টঅ-অ+
চাঁদপুর ওয়েব
চাঁদপুর: মন্ত্রী পরিষদ বিভাগ এটুআই-এর সহযোগিতায় চাঁদপুর জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে চট্টগ্রাম বিভাগীয় ইনোভেশন সার্কেল (২য় পর্ব) অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল ২৩ নভেম্বর বুধবার সকাল ৯টায় অনুষ্ঠিত আয়োজনে চট্টগ্রাম বিভাগীয় জেলাগুলো অংশগ্রহণ করে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন মন্ত্রী পরিষদ বিভাগ (সমন্বয় ও সংস্কার) সচিব এনএম জিয়াউল আলম।
    প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী পরিষদ বিভাগ (সমন্বয় ও সংস্কার) সচিব এনএম জিয়াউল আলম বলেন, চাঁদপুরের মতো অন্যান্য জেলাতেও ব্র্যান্ডিং নিয়ে কাজ করতে হবে। দায়িত্বের প্রতি কোনোভাবেই অবহেলা করা যাবে না। মাঠ পর্যায়ে যারা উদ্ভাবক তাদের সুযোগ সৃষ্টি করে দিতে হবে। স্থানীয় পর্যায়ে যে সকল উদ্যোগগুলো সম্ভাবনাময়, তা নিয়ে আগ্রাধিকার ভিত্তিতে কাজ করতে হবে।
    তিনি আরো বলেন, ইলিশ রক্ষায় চাঁদপুর জেলায় যে কর্মকা- পরিচালিত হয়েছে তা প্রশংসনীয়। ইলিশ নিয়ে আরো গবেষক সৃষ্টি করতে হবে। আজকের এই আয়োজনে যারা উপস্থিত হয়েছেন তাদের সকলকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।
    চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মোঃ রুহুল আমীনের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সমবায় অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোঃ মফিজুল ইসলাম ও এটুআই ক্যাপাসিটি ডেভলপমেন্ট স্পেশালিস্ট মানিক মাহমুদ।
    অনুষ্ঠানের শুরুতেই স্বাগত বক্তব্য রাখেন চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক মোঃ আব্দুস সবুর মন্ডল। এ সময় তিনি জেলার ৪৫টি ইনোভেশন তুলে ধরেন। উল্লেখযোগ্য ইনোভেশনগুলো হলো ঃ চাঁদপুর জেলার ১৫৫টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মাল্টিমিডিয়া ক্লাশ চালু করা হয়েছে। প্রশিক্ষিত শিক্ষকের সংখ্যা ৩শ’ ১০ জন। মাধ্যমিক পর্যায়ে ৪০৫টি মাল্টিমিডিয়া স্কুল চালু রয়েছে। প্রশিক্ষিত শিক্ষকের সংখ্যা ১ হাজার ৩শ’ ৬৯ জন। পুরো জেলায় ৫শ’ ৬০ প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে মাল্টিমিডিয়া ক্লাশ রুম চালু রয়েছে। জেলায় সরকার কর্তৃক বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ৬শ’ ৫৭টি ডেস্কটপ ও ১ হাজার ২৪টি ল্যাপটপ প্রদান করা হয়েছে। বেসরকারিভাবে ৪শ’ ১৩টি ডেস্কটপ ও ৮শ’ ৫০টি ল্যাপটপ ক্রয় করে মাল্টিমিডিয়া ক্লাশ করানো হচ্ছে।
    তিনি আরো বলেন, নিয়মিত সভার মাধ্যমে অনেক সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে যা পর্যায়ক্রমে বাস্তবায়ন করা হবে। সরকারি সেবা গ্রহণের ক্ষেত্রে জনগণের (টিভিসি) কমিয়ে জনগণের দৌড়গোড়ায় সেবা দ্রুত পৌঁছানোর উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। জনগণের স্বল্প সমযে কাক্সিক্ষত সেবা প্রদানের লক্ষ্যে নাগরিক সেবা সনদ প্রণয়ন করা হয়েছে। জেলার ৮টি উপজেলার ভূমি অফিসে অটোমেশন ব্যবস্থা চালু করা হয়েছে। জেলা মার্কেটিং অফিসারের তত্ত্বাবধানে লাইসেন্স গ্রহণকারী ব্যবসায়ীদের ডাটাবেইজ তৈরির কাজ চলছে। ৭শ’ ৫০ জন গ্রাম পুলিশের ডাটাবেইজ তৈরি করা হয়েছে। সাধারণ ভোক্তাগণ যাতে সহজে পণ্য সামগ্রীর দাম জেনে ক্রয় করতে পারে সেজন্যে পুরাণবাজারে ডিজিটাল মনিটরিং বোর্ড স্থাপন করা হয়েছে। জেলা মৎস্য কর্মকর্তার মাধ্যমে জেলার ৪৫ হাজার জেলের ডাবাবেইজ তৈরি করা হয়েছে। গত ১ বছরের ইউডিসির মাধ্যমে ই-হেলথ সেবা প্রদান করা হয়েছে। এসব বিষয়ের ৪৫টি ইনোভেশন সংক্রান্ত তথ্য উপস্থাপন করেন।
    বিভিন্ন জেলার উন্নয়ন কর্মকা- ও অগ্রগতি তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মোঃ সামছুল আরেফিন, নোয়াখালী জেলা প্রশাসক সদরে বদরে মুনির ফেরদৌস, কুমিল্লা জেলা প্রশাসক মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রশাসক রেজওয়ানুর রহমান, লক্ষ্মীপুর জেলার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোঃ মুর্শিদুল রহমান, ফেনী জেলা প্রশাসক আমিনুল আহসান, ফেনী সদর এসিল্যান্ড ¯েœহাশীষ দাস, কুমিল্লার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক আজিজুর রহমান, চট্টগ্রাম বিদ্যুৎ বিক্রয় ও বিতরণ নির্বাহী প্রকৌশলী কাউসার মামুন ও চাঁদপুরের পুলিশ সুপার শামসুন্নাহার।
    এছাড়াও বিভিন্ন জেলার বার্ষিক উদ্ভাবনী কর্মপরিকল্পনা ও অগ্রগতি তুলে ধরেন, ইলিশ গবেষক ড. আনিসুর রহমান, কুমিল্লা সদর উপজেলার সহকারী কমিশনরা (ভূমি) আলী আফরোজ, নোয়াখালী কৃষি কর্মকর্তা সহিদুল ইসলামসহ বিভিন্ন জেলার সরকারী বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ।  
    উন্মুক্ত আলোচনা পর্বে বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র নাছির উদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল, চাঁদপুর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. এএসএম দেলওয়ার হোসেন, চাঁদপুর সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর এমএ মতিন মিয়া, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি বিএম হান্নান, সাধারণ সম্পাদক সোহেল রুশদী, সাবেক সভাপতি কাজী শাহাদাত, হাজীগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যাপক আঃ রশিদ মজুমদার, মৈশাদী ইউপি চেয়ারম্যান মানিরুজ্জামান মানিক, সময় টিভির জেলা প্রতিনিধি ফারুক আহমেদ প্রমুখ।
    সভাপতির বক্তব্যে চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মোঃ রুহুল আমীন বলেন, ইলিশের বাড়ি চাঁদপুরে আসতে পেরে ভালো লাগছে। এখানে যারা অনেক দূর থেকে এসেছেন তাদেরসহ সকলকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। এ আয়োজনের উদ্দেশ্য হলো, উদ্ভাবনী চিন্তাকে কাজে লাগিয়ে দেশের উন্নয়নকে তরান্বিত করা। নাগরীক সেবাকে সহজীকরণ করা।
    তিনি আরো বলেন, অপরাধের উৎসগুলো খুঁজে বের করে তা প্রতিকার করতে হবে। মাদক, বাল্যবিয়ে ও শিশু নির্যতনের বিষয়ে বেশী করে গুরুত্ব দিতে হবে।
অনুষ্ঠানের শুরুতে কোরআন তেলোওয়াত করেন সমবায় কর্মকর্তা মোঃ রফিকুল ইসলাম, গীতা পাঠ করেন বিমল চন্দ্র দে। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন চাঁদপুর সদর এসিল্যান্ড অভিষেক দাস ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শেখ মেসবাউল সাবেরিন।

চাঁদপুর : স্থানীয় সংবাদ এর আরো খবর