মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৯
logo
যৌতকের জন্য স্বামীর অমানুষিক নির্যাতনে চাঁদপুরে অন্তঃসত্বা গৃহবধুর মৃত্যু
প্রকাশ : ০৭ নভেম্বর, ২০১৬ ০৯:৩৫:৪৩
প্রিন্টঅ-অ+
শরীফ চৌধুরী
চাঁদপুর:যৌতকের জন্য স্বামীর অমানুষিক নির্যাতন ও শ্বশুড়-শাশুড়ির অবহেলায় রোববার চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে অন্তঃসত্বা গৃহবধু সুফিয়া বেগম (১৮) এর করুন মৃত্যু হয়েছে। ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে লোকেজন জানার  আগেই তরিগড়ি করে শ্বশুড় তাহের ও শাশুড়ি হাসনা বেগম নিহত গৃহবধু সুফিয়া বেগমের লাশ হাসপাতাল থেকে নিয়ে পালিয়ে যায়। নিহত গৃহবধু সুফিয়া বেগমের মা ছিরু বেগম জানান, এক বছর পূর্বে মতলব উত্তর দক্ষিন রামপুর ইউনিয়নের আমিরাবাদের শিকদার বাড়ির তাহের শিকদারের ছেলে স্বপন(২৮) শিকদারের সাথে তাঁর মেয়ে  সুফিয়া বেগমের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই স্বামী স্বপন যৌতকের জন্য প্রতিদিন তাকে বেদম মারধর করে। সুফিয়া বেগম অন্তসত্বা হবার পর থেকে তাকে বেশ কয়েকবার মারধর করার পরে সে নিজের প্রান বাঁচাতে পালিয়ে বাড়িতে চলে আসে। তার গর্ভে ১০ মাসের বাচ্চা থাকায় গত শুক্রবার রাতে  তার প্রসব ব্যথা শুরু হলে সুফিয়া বেগমকে চাঁদপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। হাসপাতালে কর্তব্যরত ডাক্তার অন্তসত্বা গৃহবধু সুফিয়া বেগমের অবস্থা আশংঙ্খাজনক দেখে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করে। শ্বশুড়-শাশুড়ির হাসপাতালে এসে তাকে কুমিল্লায় না নিয়ে অবহেলায় করে।
        নিহত গৃহবধু সুফিয়া বেগমের মা ছিরু বেগম  অভিযোগ করে বলেন, আমার  মেয়ের মৃত্যুর জন্য দায়ি তার স্বামী স্বপন শিকদার। সে গর্ভকালীন থাকাবস্থায় তার পেটে লাত্থি মারায় অনেক রক্তক্ষরন হয়েছে। এই কারনে তার অবস্থা গুরুতর হয়ে পড়লে ডাক্তার তাকে কুমিল্লায় নেয়ার জন্য বলে। কিন্তু তার শ্বশুড়-শাশুড়ি হাসপাতালে এসে তাকে কুমিল্লায় না নিয়ে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে রাখার কারনে গর্ভে ১০ মাসের  বাঁচ্চা নিয়ে সুফিয়া মৃত্যুবরন করে।  
         এদিকে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালের গাইনী বিভাগে ডিউটিরত ক’জন সেবিকা জানান, রোগীটিকে হাসপাতালে নিয়ে আসার পর থেকেই আমরা তার অবস্থা থুব খারাপ দেখতে পাই এবং তার অনেক রক্তক্ষরন দেখে উন্নত চিকিৎসার জন্যে কুমিল্লা হাসপাতালে নেয়ার কথা বলি। কিন্তু টাকা পয়সার অভাবে তার শশুড় বাড়ির লোকজন সেখানে নিতে অবহেলা করেন। আমরা ও হাসপাতালের অনেকে অনুরোধ করেছি তাকে তারাতাড়ি কুমিল্লা নেয়ার জন্য। এমনকি লোকজনের কাছে টাকা উঠিয়ে দেয়ার কথাও বলেছি কিন্তু তারা তাতেও রাজি হয়নি। পরে রোববার সকালে তার মৃত্যু হয়।  
 

চাঁদপুর : স্থানীয় সংবাদ এর আরো খবর