বুধবার, ০৮ জুলাই ২০২০
logo
চাঁদপুরে জাতীয় যুব দিবসের আলোচনা সভায় জেলা প্রশাসক মোঃ আব্দুস সবুর মণ্ডল
বর্তমান সরকার যুবকদের নিয়ে সোনার বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখছে
প্রকাশ : ০২ নভেম্বর, ২০১৬ ১০:০১:১৪
প্রিন্টঅ-অ+
চাঁদপুর ওয়েব ডেস্ক
চাঁদপুর: ‘আত্মকর্মী যুব শক্তি-টেকসই উন্নয়নের মূল ভিত্তি’ এই শ্লোগানকে নিয়ে এ বছর জাতীয় যুব দিবস উদযাপন করা হয়েছে। গতকাল ১ নভেম্বর মঙ্গলবার সকাল ১০টায় চাঁদপুর শহরতলীর চাঁদখার বাজার এলাকার যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের আয়োজনে র‌্যালি, আলোচনা সভা, যুবঋণ ও যুব কল্যাণ তহবিলের অনুদানের চেক বিতরণ করা হয়েছে।
    যুব উন্নয়নের অধিপ্তরের উপ-পরিচালক মোঃ শামছুন্নাজামানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মোঃ আঃ সবুর ম-ল। তিনি বক্তব্যে বলেন, যুবকদের নিয়ে সোনার বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখছে বর্তমান সরকার। বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা করা হয়েছে তা রাজনৈতিক দল নয়। ২০৪১ সালে ৩০-৩২ বয়সী আত্মকর্মসংস্থানে থাকবে ১ কোটি ৮৭-৮৮ লাখ মানুষ। সেই প্রজেশনের নায়ক নায়িকারা হল তোমরা। যুব উন্নয়ন প্রশিক্ষণ এটা মূলভিত্তি নয়। সরকার ন্যাশনাল স্কীম ডেবলপমেন্ট গঠন করছে। বাংলাদেশের যুবসমাজকে সমৃদ্ধি করতে যুব উন্নয়ন, টিটিসি ও ভোকেশনালের মাধ্যমে যুবকদের প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে। বর্তমানে ৮৪ লাখ লোক প্রবাসে চাকুরি করে। সেদিক থেকে চাঁদপুর রয়েছে ৪র্থ স্থানে বাংলাদেশ সরকার উন্নয়নের পথে চলছে। ডিটিজাল এক শব্দ নয়। তা অনেক কিছু। ডিজিটালের চিন্তাভাবনা আমাদের রাখতে হবে। উদাহরণ সরূপ করা হয় যদি কোন ব্যক্তি ডিজিটাল পদ্ধতির মাধ্যমে এগিয়ে নিতে চায় তাহলে পুকুরে মাছ চাষ করে পাহাড়া দিতে লোকের ও অর্থের প্রয়োজন। সেই ক্ষেত্রে ওই ব্যক্তিটিকে পুকুরে মাছ চাষ করে সিসি ক্যামেরা ব্যবহার করে তাহলে ঘরে বসেই তিনি পুকুর পাহাড়া দিতে পারেন। এটাও একটা ডিজিটাল উদ্ভাবনী। যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর যদি আত্মকর্মসংস্থানের জন্য ১০ জন ব্যক্তিকে মনোনিত করে আমার কাছে সহায়তা চাইলে আমি তাদেরকে সহায়তা প্রদান করবো। যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের মাধ্যমে যুবকদের নিয়ে একটি স্বেচ্ছাসেবী দল গঠন করতে হবে। এই দলটি ভলান্টিয়ার হিসাবে বিভিন্ন সার্ভিস হিসেবে কাজ করবে। তিনি যুবকদের উদ্দেশ্যে আরো বলেন তোমরা যা করছো বা শিক্ষা নিচ্ছ তা এক ভাগ তোমাদের। বাকী ৯৯ ভাগ রাষ্ট্রের ও অন্যের উপকারের জন্য করবে। তাহলেই তোমরা মহৎ ব্যক্তি হতে পারবে।
    বিশেষ অতিথির বক্তব্যে পুলিশ সুপার শামসুন্নাহার বলেন, যুব শক্তি শব্দটি ছোট। কিন্তু এর অর্থ অনেক বড়। একজন যুবক যদি শক্ত হয় তাহলে দেশ মূল শক্তি পাবে। যুব উন্নয়নের মাধ্যমে যুবকদেরকে উন্নত ভাবে প্রশিক্ষণ দিয়ে কর্মজীবনে নিয়ে রাষ্ট্রের উন্নয়নের বেশিরভাগ কাজে লাগাতে হবে। এসএসসি পাশ করার পর আমাদের সন্তানদের যে বিষয়ের প্রতি আগ্রহ থাকবে সে বিষয়েই ছেড়ে দিতে হবে। গতানুগতিক শিক্ষার পাশাপাশি টেকনিকেল বিষয়ে পড়াশোনা করতে দিতে হবে। আমাদের জনগণকে শক্তিতে রূপান্তরিত করতে হলে ছোট বেলা থেকে শিক্ষা গ্রহণ করতে হবে। আগামী ২০২১ ও ২০৪১ সালের মধ্যে যুব সমাজকে শক্তিতে রূপান্তর করতে আমাদের যার যা করার প্রয়োজন আমাদেরকে বললে আমরা চেষ্টা করবো। যুব সমাজ যেন অন্যায়ের সাথে না জড়াতে পারে আমাদের সেদিকে দৃষ্টি রাখতে হবে।
    জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল বলেন, পৃথিবীতে যা কিছু অর্জন হয়েছে তা রাজনৈতিক কারণে হয়েছে, কোন ব্যক্তিগত কারণে নয়। বিভিন্ন স্থানে রাজনৈতিক নেতারা প্রশাসনকে সহায়তা করে না। জাতির পিতা স্বপ্ন দেখেছিলেন একটি সুখি সমৃদ্ধিশালী সোনার বাংলাদেশ গঠনের। তাই চাঁদপুরে আমরা প্রশাসনকে সাথে নিয়ে কাজ করে যাচ্ছি। যুবসমাজকে প্রশিক্ষণ দিয়ে আরো উন্নতি করছে বর্তমান সরকার। যুবকরা বেকার থাকলে দেশের ক্ষতি হবে। আমরা ওই যুবসমাজ চাই না যারা চাঁদাবাজি করবে, আমরা ওই যুবসমাজ চাই যারা উন্নত জাতি গঠনের জন্য কাজ করবে। চাঁদপুর প্রেসক্লাব সাবেক সভাপতি গোলাম কিবরিয়া জীবন, সাধারণ সম্পাদক সোহেল রুশদী। সুবিধাভুগীদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন গিয়াস উদ্দিন নান্নু, আঃ মতিন তপাদার, শেখ মোঃ মহসিন, মোঃ আবু হানিফ। পরে আত্মকর্মসংস্থানের জন্য ঋণের চেক বিতরণ করা হয়।

চাঁদপুর : স্থানীয় সংবাদ এর আরো খবর