শনিবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৯
logo
ঘূর্ণিঝড়ে দেবে যাওয়া চাঁদপুর শহর রক্ষা বাঁধের বড় স্টেশন মোলহেড রক্ষা......
তাৎক্ষণিক ৩ কোটি ২৯ লক্ষ টাকার প্রেরণকৃত প্রকল্প আজও অনুমোদন মিলেনি
প্রকাশ : ১৯ অক্টোবর, ২০১৬ ০৮:০৯:৫৩
প্রিন্টঅ-অ+
শরীফ চৌধুরী

চাঁদপুর: আগস্ট মাসে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড়ে চাঁদপুর শহর রক্ষা বাঁধের বড় স্টেশন মোলহেডের ১শ’ ৮৩ মিটার এলাকা ঝুঁকিপূর্ণ রয়েছে। যা পানি উন্নয়ন বোর্ডের ডিজিটাল সার্ভে রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে। এ ব্যাপারেও এখন পর্যন্ত কোন উদ্যোগ নেয়া হয়নি। তাছাড়া ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা রক্ষায় তাৎক্ষণিক নোট শীটে ৩ কোটি ২৯ লক্ষ টাকা বরাদ্দ চেয়ে একটি প্রকল্প পানি উন্নয়ন বোর্ডে পাঠানো হয়েছে। অথচ দু’মাস অতিবাহিত হলেও প্রকল্পটির আজো অনুমোদন মিলেনি। এতে শুষ্ক মৌসুমেও মোলহেড হুমকির মুখে থাকবে। কারন ইতিপূর্বেও সময়মতো কাজ না করায় বড় স্টেশন মোলহেডের ডান দিকে শুষ্ক মৌসুমে হঠাৎ বিশাল এলাকা দেবে গিয়ে মেঘনায় বিলীন হয়ে গেছে। এদিকে মোলহেডকে ঘিরে চাঁদপুর পর্যটন নগরীতে গড়ে তুলতে প্রশাসনের তোরজোড় চলছে। অথচ মোলহেড রক্ষায় তেমন তোরজোড় লক্ষ্য করা যাচ্ছে না। বিষয়টি চাঁদপুরবাসীকে ভাবিয়ে তুলছে।
      পানি উন্নয়ন বোর্ডের একটি সূত্র জানায়, গত ২১ আগস্ট সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড়ের আঘাতে চাঁদপুর শহর রক্ষা বাঁধের বড় স্টেশন মোলহেডসহ পুরান বাজার হরিসভা এলাকায় ব্যাপক ধ্বসের ঘটনা ঘটে। ঢাকা থেকে ডিজিটাল সার্ভের টিমের রিপোর্ট অনুযায়ী ১শ’ ৮৩ মিটার এলাকা ঝুঁকিপূর্ণ হিসাবে নির্ণয় করে। এর মধ্যে বেশিরভাগ ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা বড় স্টেশন মোলহেড। আপদকালীন ফান্ড না থাকায় চাঁদপুর পানি উন্নয়ন বোর্ড তখন তাৎক্ষণিক কোন ব্যবস্থা নিতে পারে নাই। কিন্তু পরবর্তীতে পানি উন্নয়ন বোর্ডের কাছে রক্ষিত ১০ হাজার জিও ব্যাগ ও ৩ হাজার ৬শ’ ৯৫টি সিসি ব্ল¬ক ডাম্পিং করার জন্য টেন্ডারের মাধ্যমে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান সুমন টেডার্সকে ২৯ আগস্ট ওয়ার্ক ওয়ার্ডার প্রদান করে। ওয়ার্ক ওয়ার্ডার হওয়ার পর ১ সেপ্টেম্বর থেকে ডাম্পিংয়ের কাজ শুরু হয়। ধীর গতিতে চলা চাঁদপুর শহর রক্ষা বাঁধের ডাম্পিং কাজের এ পর্যন্ত ৩ হাজার ৬শ’ ৯৫ ব্ল¬ক ডাম্পিং সম্পন্ন হলেও বালি ভর্তি জিও ব্যাগ ডাম্পিংয়ের কাজ এখনও ধীর গতিতে চলছে।
     পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপসহকারী প্রকৌশলী আশরাফুজ্জামান জানান, ২১ আগস্টের ঘূর্ণিঝড়ে বড়স্টেশন মোলহেডের দেবে যাওয়া প্রায় ১শ’ মিটার জায়গা মেরামতের জন্য ইতিমধ্যে ৩ কোটি ২৯ লক্ষ টাকা বরাদ্দের জন্য ১টি নোট শীট পানি উন্নয়ন বোর্ডে পাঠানো হয়েছে। তিনি আরো জানান, বড় স্টেশন মোলহেড জন্য যে বরাদ্দ চাওয়া হয়েছে, তা এখনও পাওয়া যায়নি। তবে পাওয়া গেলে দেবে যাওয়া মোলহেডের অংশসহ পুরোটাই মেরামত করা সম্ভব হবে। অন্যথায় বর্তমানে যেভাবে আছে সেভাবে থাকবে। তবে পানি উন্নয়ন বোর্ডের কাছে মজুদকৃত ১০ হাজার জিও ব্যাগ ও ৩ হাজার ৬শ’ ৯৫ সিসি ব্লক দেবে যাওয়া নিচের অংশে ফেলা হচ্ছে। যাতে করে আপাতত ক্ষতিগ্রস্থ অংশ নিচের দিকে আর দেবে না যায়।
 

চাঁদপুর : স্থানীয় সংবাদ এর আরো খবর