মঙ্গলবার, ২৬ মে ২০২০
logo
নদীতে নামলেই জেলেদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে
মা ইলিশ রক্ষায় আজ থেকে পদ্মা-মেঘনায় ২২দিন ইলিশসহ সব ধরনের মাছ ধরা নিষিদ্ধ
প্রকাশ : ১২ অক্টোবর, ২০১৬ ০৭:১২:৪১
প্রিন্টঅ-অ+
শরীফ চৌধুরী

চাঁদপুর: মা ইলিশ রক্ষায় আজ বুধবার থেকে পদ্মা-মেঘনা নদীতে জাল ফেলাসহ ইলিশ ধরা, ক্রয়-বিক্রয়, মজুদ সম্পন্ন নিষিদ্ধ করেছে সরকার। ভরা পূর্ণিমায় প্রজনন মৌসুম হওয়ায় আজ ১২ অক্টোবর থেকে আগামী ২ নভেম্বর পর্যন্ত মা ইলিশ রক্ষায় ২২ দিন চাঁদপুরসহ ২৭ জেলায় পদ্মা-মেঘনা নদীতে সকল প্রকার মাছ ধরা বন্ধ থাকবে। এবারই প্রথম এই নিষেধাজ্ঞার সময় জেলেরা ২০কেজি করে চাল সহায়তা পাবে। প্রজনন মৌসুমে যাতে জেলেরা নদীতে মা ইলিশ না মারে সে জন্য চাঁদপুরের জেলা প্রশাসন ও মৎস্য বিভাগের উদ্যোগে উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে জেলেদের নিয়ে ব্যাপক সভা সমাবেশ করেছে। যার কারনে এবার জেলেরা প্রতিশ্রুতি দিয়েছে মা ইলিশ রক্ষায় তাদের ভূমিকাই বেশি থাকবে। যদিও এ ২২দিন চাঁদপুরের ৪১ হাজার জেলে বেকার হয়ে পড়বে। চাঁদপুরের পদ্মা মেঘনার মতলবের ষাটনল থেকে হাইমচর ৬০কিলোমিটার এলাকা মা ইলিশ ডিম ছাড়ে। তাই মা ইলিশ অন্যান্য বছরের মতো এবছরও বিশেষ তদারকি করবে প্রশাসন ও মৎস্য বিভাগ। যদিও জেলেদের দাবি তারা কখনো সরকারি অভিযানের সময় নদীতে নামেন না। তবে কেউ কেউ বলছেন সরকারি সহায়তা না পেলেতো এক প্রকার বাধ্য হয়েই নদীতে নামতে হয়।
          চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক মো. আব্দুস সবুর মন্ডল জানান, মা ইলিশ রক্ষায় এবার ব্যাপক গণসচেতনতামূলক সভা সমাবেশ করা হয়েছে। আশা করা হচ্ছে, এ কারনে এবার জেলেরাই মা ইলিশ রক্ষা করবে। তারপরও মা ইলিশ রক্ষায় নদী, মাছঘাট, মৎস্য আড়ৎ, হাটবাজার, চেইনশপে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সহায়তায় ব্যাপক অভিযান চলবে। কেউ নদীতে নামলে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। তাদের ভিজিএফ কার্ড বাতিল করা হবে এবং তাদেরকে পাঠানো হবে জেলে। যদি কোন জেলে চুরি করে নদীতে নামে তবে তাদের বাড়ী থেকে এনে জেলে ঢুকানো হবে। অন্যদিকে কোস্টগার্ড, নৌ পুলিশ ও পুলিশ প্রশাসন কঠোর নিরাপত্তার বলয়ে ঢেলে সাজানো হয়েছে, যাতে নদীতে কোন জেলে নামতে না পারে। গত বছর মা ইলিশ ও জাটকা রক্ষা কার্যক্রম সফল হওয়ায় এবছর ইলিশের উৎপাদন বেড়েছে। আশা কারছি এবছরও এসব কার্যক্রম জাতীয় স্বার্থে সফল করতে সকলে ঐক্যবদ্ধ হবে।
         পুলিশ সুপার শামসুন্নাহার জানান, মা ইলিশ রক্ষায় কোন ছাড় দেয়া হবে না। নদীতে ও তীরে পুলিশি টহল দেয়া হয়েছে।
 জেলা মৎস্য কর্মকর্তা সফিকুর রহমান জানান, এবার প্রজনন মৌসুমে জেলেদের পুনর্বাসনের জন্য দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ে জেলেদের খাদ্য সহায়তা হিসেবে ২০কেজি করে চাল দিবে। তিনি আরো জানান, গত বছর ইলিশ রক্ষায় কঠোর পদক্ষেপ নেয়ায় এবার অলিগলিতে ইলিশ পাওয়া গিয়েছে। জনগণ স্বাদ্যমতো ইলিশ ক্রয় করে এর স্বাদ নিতে সক্ষম হয়েছে। যার জন্য এবার জনগণও চায় মা ইলিশ রক্ষা হউক।
 

চাঁদপুর : স্থানীয় সংবাদ এর আরো খবর