শুক্রবার, ২৪ জানুয়ারি ২০২০
logo
চতুরঙ্গ আয়োজিত ৭ দিনব্যাপী প্রাণ ফ্রুটিক্স ৮ম ইলিশ উৎসবের সফল সমাপ্তিতে পুলিশ সুপার শামসুন্নাহার
এ উৎসব চাঁদপুরবাসীর জন্যে আশীর্বাদস্বরূপ
প্রকাশ : ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১২:৪২:৫১
প্রিন্টঅ-অ+
চাঁদপুর ওয়েব ডেস্ক

চাঁদপুর: বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে শুরু হওয়া সপ্তাহব্যপী৮ম প্রাণ ফ্রুটিক্স ইলিশ উৎসবের সফল সমাপনী হয়েছে। চতুরঙ্গ সাংস্কৃতিক সংগঠনের আয়োজনে গতকাল ২৮ সেপ্টেম্বর বুধবার জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে সমাপনী দিনেও প্রতিযোগিতা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, গুণীজন সংবর্ধনা ও আলোচনা সভা এবং পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়। বিকেল ৩টায় জাতীয় সংগীত প্রতিযোগিতা, গৃহিণীদের রেসিপি, আলোকচিত্র ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার মধ্য দিয়ে সপ্তহব্যাপী উৎসবের সমাপনী দিনের কার্যক্রম শুরু করা হয়। রেসিপি প্রতিযোগিতায় ১০ জন প্রতিযোগী অংশ নেয়। এরা হলে ঃ ফাতেমা বেগম, সিনহা, পারভিন বেগম, রহিমা বেগম, নিশু, ডলি রক্ষি, আকাশ, রোমানা, সুচিত্র দাস ও মুক্তা শেখ। আলোকচিত্র প্রদর্শনীতে অংশগ্রহণ করেন সাংবাদিক বাদল মজুমদার, মানিক দাস, মুহাম্মদ আলমগীর, এসএম সোহেল, আশিক বিন রহিম, শরীফুল ইসলাম, আলোকচিত্রী পলাশ মজুমদার ও তাওসিফ প্রমুখ।
বিকেল সাড়ে ৫টায় ইলিশ বিষয়ক গোল টেবিল আড্ডা অনুষ্ঠিত হয়। এতে চতুরঙ্গের মহাসচিব হারুন আল রশীদের সঞ্চালনয়া অংশ নেন ইনার হুইল ক্লাকের প্রেসিডেন্ট মাহমুদা খানম, জাতীয় মৎস্যজীবী সমিতি চাঁদপুরের সভাপতি মালেক দেওয়ান, কান্ট্রি ফিশিং বোর্ড মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম মল্লিক, মৎস্যজীবী নেতা তছলিম বেপারী, কণ্ঠশিল্পী অনিতা নন্দী।
সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় মতলব উপজেলার নৃত্যাঞ্জলি সাংস্কৃতিক সংগঠনের শিল্পীদের পরিবেশনায় নৃত্যানুষ্ঠান পরিবেশিত হয়। এতে নৃত্য পরিবেশন করেন আয়শা খাতুন সিনথিয়া, আবিদা তাসনিম মুন, অর্পিতা, এশা, নিহা, শান্তনা। সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় ইলিশ বিষয়ক আলোচনা এবং গুণীজন সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়। এতে সাংবাদিক এ এইচ এম আহসান উল্লাহকে সংবর্ধনা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। একই সাথে কণ্ঠশিল্পী মৃনাল সরকারকে সংগঠনের পক্ষ থেকে সংবর্ধিত করা হয়।
সমাপনী দিনের ইলিশ বিষয়ক আলোচনায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন পুলিশ সুপার শামসুন্নাহার। তিনি বলেন, ইলিশ উৎসব চাঁদপুরবাসীর জন্যে আশীর্বাদস্বরূপ। এটি কখনোই বন্ধ হতে দেয়া যাবে না। এ উৎসব যুগ যুগ ধরে চলতে থাকবে বলে আমি বিশ্বাস করি। চাঁদপুরে একটি অনুষ্ঠান যদি সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেয়া হয়, সেটি হলো ইলিশ উৎসব। আমি এ উৎসবকে অনেক বেশি গুরুত্বের সাথে দেখি। তিনি বলেন, আমি চাঁদপুরে এসে যখন ইলিশের আকাল দেখলাম তখন খুব কষ্ট পেয়েছি। এতো স্বাদের একটি মাছ বিলুপ্ত হয়ে যাবে ভেবে খুব কষ্ট পেয়েছিলাম। কিন্তু এবার চাঁদপুরে প্রচুর পরিমাণে ইলিশ ধরা পড়ছে দেখে আমি অনেক আনন্দিত। এজন্য যে সকল জেলে, জেলে নেতা, জনপ্রতিনিধিসহ সর্বস্তরের মানুষ সহযোগিতা করেছেন আমি তাদের আন্তরিকভাবে কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।
তিনি আরো বলেন, আগামী মাস থেকে মা ইলিশ রক্ষায় ২২ দিনের অভয়াশ্রম শুরু হবে। আমি অভয়াশ্রম চলাকালে গত বছরের মতো সকল জেলেসহ সংশ্লিষ্টদের সহযোগিতা কামনা করছি। চাঁদপুরকে একটি সুন্দর জেলা হিসেবে গড়ে তুলতে হলে আমাদের সকলকে এগিয়ে আসতে হবে। মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদসহ সকল অপরাধের বিরুদ্ধে আমাদের সজাগ ও প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনারা আপনাদের সন্তানের প্রতি সজাগ দৃষ্টি রাখবেন। তারা কোথায় যাচ্ছে, কার সাথে মিশে তাদের খোঁজ রাখতে হবে। আমরা দেখেছি মাদক ও জঙ্গিবাদ আমার আপনার অগোচরে ঘরে প্রবেশ করছে। তাই অভিভাবকরা সচেতন হওয়া একান্ত প্রয়োজন। আমরা আইনের মাধ্যমে এ বিষয়গুলোর প্রতি দৃষ্টি রাখছি।
প্রধান আলোচকের বক্তব্য রাখেন স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত নারী মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ সৈয়দা বদরুন নাহার চৌধুরী। তিনি বলেন, ইলিশ আমাদের চাঁদপুর জেলার গর্ব। বিশ্বব্যাপী আমরা ইলিশের জন্য পরিচিতি লাভ করেছি। এ ইলিশ চাঁদপুরের অর্থনীতির চাকাকে সচল রাখে। তাই যে কোনো মূল্যেই হোক ইলিশ সম্পদকে রক্ষা করতে হবে। তিনি বলেন, চতুরঙ্গ সাংকৃতিক সংগঠন উৎসবের মাধ্যমে ইলিশ রক্ষায় জনসচেতনতা বৃদ্ধির কাজ করে যাচ্ছে। আমি এ উৎসবকে জাতীয় উৎসব করার জন্য সরকারের প্রতি দাবি জানাচ্ছি।   
ইলিশ উৎসবের আহ্বায়ক কাজী শাহাদাতের সভাপতিত্বে ও চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি বিএম হান্নানের পরিচালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের চেয়ারম্যান প্রফেসর মোঃ মফিজুর রহমান, চতুরঙ্গের চেয়ারম্যান অ্যাডঃ বিনয় ভূষণ মজুমদার, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সোহেল রুশদী। উপস্থিত সকলকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করবেন ইলিশ উৎসবের রূপকার হারুন আল রশীদ। সবশেষে রাত সাড়ে ৮টায় প্রাণ ফ্রুটিক্সের সৌজন্যে জমকালো সংগীতানুষ্ঠান ও রংধনুর নৃত্যানুষ্ঠান পরিবেশিত হয়। রংধনুর নৃত্য পরিবেশন করে জুথি, সামান্তা, রুপা, মুক্তা, তিথি, মোবারক, ইমরান, রনি, বাপ্পী, রাজু, ফিরুজ প্রমুখ। প্রাণ ফ্রুটিক্সের সৌজন্যে সর্বশেষ যে অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয় তাতে সঙ্গীত পরিবেশন করে অনন্যা ও বাউল শিল্পী রেশমী।

চাঁদপুর : স্থানীয় সংবাদ এর আরো খবর