মঙ্গলবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৯
logo
চাঁদপুরে জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় জেলা প্রশাসক মোঃ আব্দুস সবুর মন্ডল
২০২১ সালের মধ্যে চাঁদপুরকে বাল্য বিবাহমুক্ত জেলা ঘোষণা করা হবে
প্রকাশ : ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৩:৫৬:৩৯
প্রিন্টঅ-অ+
চাঁদপুর ওয়েব ডেস্ক

চাঁদপুর: চাঁদপুর জেলা আইন শৃঙ্খলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত ১৫ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক মোঃ আব্দুস সবুর মন্ডল। তিনি তার বক্তব্যে বলেন, পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে শহর পরিছন্ন রাখতে পৌর সভার পক্ষ থেকে ১৫টি স্থানে কোরবাণীর পশু জবাই করার স্থান নির্ধারণ করেছিলো। এটি একটি ভালো উদ্যোগ। এ বছর নির্দিষ্টস্থানে পশু জবাই বিষয়ে চাঁদপুরবাসী অনেক সাড়া দিয়েছে। পর্যায়ক্রমে এর শতভাগ সফলতা আসবে। বাবুরহাট, বাগাদী ও বাকিলায় সড়কের উপরে গরুর হাট বসেছে, আগামী বছর বিষয়টি কঠোরভাবে দেখা হবে। সড়কের উপরে আর কোন ভাবেই পশুর হাট বসতে দেয়া হবে না।
    তিনি আরো বলেন, চাঁদপুর শহরের বঙ্গবন্ধু সড়কে যে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে তার জন্য দুঃখ প্রকাশ করছি। চাঁদপুর জেলার আনাচে কানাচে যে সকল অবৈধ তেলের দোকান রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণে নির্দেশ প্রদান করেন। আমরা চাঁদপুর জেলাকে ২০২১ সালের মধ্যে বাল্য বিবাহ মুক্ত জেলা হিসেবে ঘোষণা করবো। তার জন্য আমরা কর্মপরিকল্পনা হাতে নিয়েছি। জনগণ আগের চেয়ে অনেক সচেতন হয়েছে।
    জেলা প্রশাসক আরো বলেন, চাঁদপুরের ভিতরে কোন মাদক থাকতে পারবে না। এর মানে হচ্ছে প্রশাসনের কাজে যারা সোর্স তারাই ভেজাল করে। তাদের বিষয়ে আমাদের সতর্ক থাকতে হবে। মাদকের বিরুদ্ধে সকল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও চকিদারদের কাজে লাগিয়ে তা নিয়ন্ত্রণে আনতে হবে। আমাদের সমাজে অনেক খারাপ কাজ রয়েছে। তার উপরে ভালো ও খারাপ দিকগুলো এনালাইসেস করে সমাধান বের করতে হবে। সকল খারাপ দিকগুলো জিরো থেকে শুরু হয় আবার তা জিরোতে শেষ হয়। চাঁদপুরের মানুষ আইন মানে। যে কোন বড় কাজ সহজে সফল করা একমাত্র চাঁদপুরেই সম্ভব।     
    অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আশরাফুজ্জামান তার বক্তব্যে বলেন, হাইমচরের জান্নাত নামে শিশু ঢাকায় নির্যাতনের ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। দোষীদের আইনের আওতায় এনে শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে। বাগাদীতে স্কুল ছাত্রীর আত্মহত্যার ঘটনায় তদন্ত অব্যাহত রয়েছে। দোষীদের ছাড় দেয়া হবে না। চাঁদপুর শহরের বঙ্গবন্ধু সড়কে যে অগ্নিকান্ডের ঘটনায় আইনগত পক্রিয়া চলছে। পবিত্র ঈদুল আযহা সাধারণ জনগণকে নিরাপত্তা দিতে সক্ষম হয়েছি। ওয়াজ ও মসজিদ নির্মানে রাস্তার উপর কোন গাড়ি থামিয়ে কোন টাকা আদায় করা যাবে না। এখনো যে সকল বাসা বাড়ির তথ্য জমা দেননি তাদেরকে আইনের আওতায় আনা হবে। চাঁদপুর জেলার থেকে মাদক দূর করতে হলে প্রশাসনের সাথে সকলের সু-সম্পর্ক থাকতে হবে। জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়া আমাদের অস্তিত্বের লড়াই হয়ে গেছে। আমাদের সচেতন হতে হবে এরা যেন আর সংগঠিত হতে না পারে। জঙ্গি দমনের ক্ষেত্রে আমরা অনেক ভালো অবস্থানে রয়েছি।
    জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র নাছির উদ্দিন আহমেদ তার বক্তব্যে বলেন, পবিত্র ঈদুল আযহায় পশুর কোরবাণীর হাটে কোন চাঁদাবাজি হয়নি। তা সম্ভব হয়েছে সকলের আন্তরিকতা থাকার কারণে। আমরা সুন্দর ও শান্তিপূর্ণভাবে ঈদ পালন করেছি। যে কোন পরিস্থিতি মোবাবেলায় আমরা সতর্ক রয়েছি। আমাদের আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করতে হবে। সকলকে আরো আন্তরিক হতে হবে।  
    অনুষ্ঠানের শুরুতেই গত সভার কার্যবিবরণ পাঠ, সিদ্ধান্ত ও এর অগ্রগতি তুলে ধরেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ শাহাদাৎ হোসেন।
    অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, নৌ পুলিশের পুলিশ সুপার সুব্রত কুমার হালদার, স্বাধীনতা পদক প্রাপ্ত নারী মুক্তিযোদ্ধা ডা. সৈয়দা বদরুন নাহার চৌধুরী, চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি সুভাষ চন্দ্র রায়, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি বি এম হান্নান, শাহরাস্তি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন, পিপি আমান উল্যাহ, এলজিডির নির্বাহী প্রকৌশলী জিএম মুজিবুর রহমান, সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা উদয়ন দেওয়ান, হাজীগঞ্জ উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ মুর্শিদুল ইসলাম, মতলব দক্ষিণ উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা শহিদুল ইসলাম, কচুয়া উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ আশরাফ হোসেন, চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালের ডাক্তার সফিকুর রহমান, জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ সফিকুর রহমান প্রমুখ।  
    এ সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ মাসুদ হোসেন, চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডাঃ প্রদীপ কুমার দত্ত, চাঁদপুর সরকারি মহিলা কলেজের উপাধ্যক্ষ মাসুদুর রহমান, জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের ইন্সপেক্টর তাজুল ইসলামসহ বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তারা।

চাঁদপুর : স্থানীয় সংবাদ এর আরো খবর