শুক্রবার, ২২ নভেম্বর ২০১৯
logo
ভরা মৌসুমে ইলিশের প্রচুর আমদানী
বড় স্টেশন মাছঘাটে প্রাণ ফিরে এসেছে
প্রকাশ : ০৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৩:১২:০৫
প্রিন্টঅ-অ+

চাঁদপুর: ভাদ্র আর আশ্বিন ইলিশের ভরা মৌসুম। এর মধ্যে ভাদ্র মাসের অর্ধেক দিন অতিবাহিত হয়ে গেছে। চাঁদপুর মাছঘাটে যেনো প্রাণ ফিরে এসেছে। মৎস্য ব্যবসায়ী, শ্রমিক আর জেলেদের মুখে ফুটে উঠেছে হাসি। ভাদ্র মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকে দেশের দক্ষিণাঞ্চলে প্রচুর পরিমাণ ইলিশ জেলেদের জালে আটকা পড়তে শুরু করেছে। আর সেই ইলিশ সমুদ্র জাহাজ খ্যাত কাঠের তৈরি ট্রলার বোঝাই করে চাঁদপুর বড় স্টেশন মাছঘাটে নিয়ে আসা হচ্ছে। এতে করে মাছঘাটের ব্যবসায়ী মহল হতে শুরু করে জেলে ও শ্রমিকদের মুখে যেনো সুখের হাসি ফুটে উঠেছে। এতোদিন মাছ ব্যবসায়ী জেলে ও শ্রমিকদের মুখে ছিলো দুঃস্বপ্নের ছায়া। মাছ না থাকায় সে অলস সময় কাটাতে হয়েছে তাদের। এখন বড় স্টেশন মাছঘাটে ইলিশের আমদানী বৃদ্ধি পাওয়ায় যেনো তাদের কর্মব্যস্ততা বৃদ্ধি পেয়েছে। সকাল হলেই যেনো বড় স্টেশন মাছঘাটে হাঁক-ডাক শুরু হয়ে যায় মাছের আড়তদারদের নিলামের ডাকের শব্দে। ব্যবসায়ীদের পক্ষের লোকজন মাছ গদিঘরের সামনে রাখামাত্র বড় মাঝারি ছোট বাছাই করতে করতে পাইকারদের কাছে দাম হাঁকাতে থাকেন। অন্যদিকে শ্রমিকরা কেউ ট্রলার থেকে মাছ নামাতে, বরফ ভাংতে, কাঠের বাক্স তৈরি করতে ও মাছ প্যাকেট করতে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছে।
    গতকাল ২ সেপ্টেম্বর বড় স্টেশন মাছঘাট ঘুরে দেখা যায়, সমুদ্রাঞ্চল থেকে ছোট-বড় প্রায় ১০/১৫টি ট্রলার এসে মাছঘাট এলাকার ডাকাতিয়া নদীর পাড়ে নোঙ্গর করেছে। সেসব ট্রলার থেকে শ্রমিকরা বড় বড় বাঁশের তৈরি ওড়াযোগে শুধু ইলিশ নামিয়ে আড়তঘরগুলোর সামনে মজুদ করছে। এখন প্রতিদিন বড় স্টেশন মাছ ঘাটে ২ থেকে আড়াই হাজার মণ মাছ বেচা-বিক্রি হয়। এখান থেকে ঢাকা, চট্টগ্রামসহ বিভিন্ন জেলায় বড় ট্রাকযোগে প্রতিদিন কমপক্ষে দেড় হাজার মণ ইলিশ রপ্তানী করা হয়। আর বাকি ইলিশ মাছগুলো চাঁদপুর শহর ও আশপাশের উপজেলায় রপ্তানী করা হচ্ছে। বর্তমানে চাঁদপুর বড় স্টেশন মাছঘাটে ১ কেজি সাইজের ইলিশ প্রতিমণ ৪২ থেকে ৪৫ হাজার টাকা, ৭ থেকে ৮শ’ গ্রাম সাইজের ইলিশ ৩৪ থেকে ৩৫ হাজার টাকা মণ ও ৫শ’ থেকে ৬শ’ গ্রাম সাইজের ইলিশ মাছ প্রতিমণ ২৫ থেকে ২৭ হাজার টাকায় বিক্রি করা হচ্ছে।
    দক্ষিণাঞ্চল থেকে আসা ইলিশ ছাড়াও ট্রাক ও পিকআপযোগে সড়ক পথেও এ মাছঘাটে নোয়াখালীর হাতিয়া থেকে ইলিশ আমদানী করে আনা হচ্ছে। প্রতিদিনই ৫/৭টি ট্রাক ও পিকআপ আসছে। ট্রলারে ও পিকআপে যেসব মাছ পচেগলে যাচ্ছে সেসব মাছ কেটে লবণজাত করতে ভিন্ন জেলায় মানুষদের মাছ ব্যবসায়ীরা ভাড়া করে এনে কাজে লাগিয়েছে। মাছঘাটে এখন দেখা যায় যেনো প্রাণচঞ্চলতা।

চাঁদপুর : স্থানীয় সংবাদ এর আরো খবর