বুধবার, ০৮ এপ্রিল ২০২০
logo
পুরাণবাজার জন্মাষ্টমী উদযাপন পরিষদের ধর্মীয় আলোচনা সভায় জেলা প্রশাসক মোঃ আব্দুস সবুর মন্ডল
সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রেখেই আমরা দেশটাকে এগিয়ে নিয়ে যাবো
প্রকাশ : ২৮ আগস্ট, ২০১৬ ১২:০৭:৩২
প্রিন্টঅ-অ+
আমরা সকলে মিলে চাঁদপুর শহরকে শান্তির শহরে পরিণত করবো : পুলিশ সুপার শামসুন্নাহার

চাঁদপুর: গত ২৬ আগস্ট শুক্রবার পুরাণবাজার জন্মাষ্টমী উদযাপন পরিষদ আয়োজিত ভগবান শ্রী কৃষ্ণের জন্মতিথি উপলক্ষে ধর্মীয় আলোচনা সভা পুরাণবাজার হরিসভা মন্দির কমপ্লেক্সে অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক মোঃ আব্দুস সবুর মন্ডল। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রখেন পুলিশ সুপার শামসুন্নাহার, চাঁদপুর চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি সুভাষ চন্দ্র রায়, সহ-সভাপতি তমাল কুমার ঘোষ, কেন্দ্রীয় জন্মাষ্টমী উদযাপন পরিষদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক লায়ন দীলিপ কুমার ঘোষ এমজেএফ, পৌরসভার প্যানেল মেয়র সিদ্দিকুর রহমান ঢালী, জেলা জন্মাষ্টমী উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি গোপাল সাহা প্রমুখ।
জেলা প্রশাসক মোঃ আব্দুস সবুর মন্ডল বলেন, আমরা যারা সরকারের দায়িত্বে রয়েছি তাদের দায়িত্ব হলো জনগণকে সেবা দেয়া। এই দায়িত্বটুকু যদি সঠিকভাবে পালন করতে পারি তবে সাধারণ মানুষ আমাদের মনে রাখবে। আজ থেকে প্রায় ৫ হাজার বছর আগে ভগবান শ্রী কৃষ্ণ জন্ম নিয়েছেন অসুরের বিনাশ করার জন্য। তিনি শান্তির বাণী প্রচার করেছেন। বর্তমান সময় দেখে মনে হচ্ছে এ সময় ভগবান শ্রী কৃষ্ণের জন্ম নেয়ার প্রয়োজন ছিলো। মথুরায় কংসের কারাগারে ৭টি সন্তান জন্ম দেন দেবকি। অষ্টম সন্তান হিসেবে আবির্ভাব হয়ে শ্রী কৃষ্ণ কংসকে বধ করেন। সনাতন ধর্মাবলম্বীরা বিশ্বাস করে যুগে যুগে অসুরের বিনাশ করার জন্য ভগবান শ্রী কৃষ্ণের জন্ম হবে। বর্তমান সরকার জন্মাষ্টমীকে সরকারি ছুটি হিসেবে ঘোষণা করেছে। এদেশে হিন্দু-মুসলিমের মধ্যে সম্প্রীতি এখনো রয়েছে। আমাদের মধ্যে কোনো দ্বন্দ্ব নেই। বর্তমান সরকার ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয় নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। সব সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রেখেই আমরা দেশটাকে এগিয়ে নিয়ে যাবো।
পুলিশ সুপার বলেন, প্রত্যেক ধর্মেই মঙ্গলের কথা, শান্তির কথা বলেছে। আমাদের ধর্মে যেমনি পাপাচার দূর করতে মানবতার বাণী নিয়ে নবী করিম (সাঃ) এসেছিলেন ঠিক তেমনিভাবে হিন্দুধর্মে অসুরের বিনাশ করতে ভগবান শ্রী কৃষ্ণের জন্ম হয়েছে। আজকে ধর্মের নামে যে জঙ্গিবাদ শুরু হয়েছে তারা মূলত ইসলামের শত্রু। কারণ কোনো ধর্মই ধ্বংসের কথা বলেনি। পৃথিবীর সকল ধর্মই মানবতার কথা বলেছে। আসুন আমরা সবাই মিলে সকল অপশক্তিকে রোধ করি। আপনাদের সকলের সহযোগিতা থাকলে সমাজ থেকে অসুরের বিনাশ করবো। তিনি বলেন, আমরা আপনাদের কাজ করার জন্য বেতন পাই। তাই আপানাদের ডাকে আমরা ছুটে আসবই। আমাদের কাজগুলো তখনই সহজ হবে যখন আপনারা আমাদের সহযোগিতা করবেন। আপনাদের কোনো ভয় নেই। আমরা আপনাদের পাশে আছি। আমরা সকলে মিলে চাঁদপুরকে একটি শান্তির শহর হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করবো।
পুরাণবাজার জন্মাষ্টমী উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি অনন্ত চক্রর্তীর সভাপতিত্বে ও চাঁদপুর কণ্ঠের চীফ রিপোর্টার বিমল চৌধুরীর পরিচালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক ডাঃ সহদেব দেবনাথ।
অনুষ্ঠানে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী বিজয়ীদের মাঝে অতিথিবৃন্দ পুরস্কার বিতরণ করেন। পুরস্কার বিতরণ পরিচালনা করেন সংগঠনের যুগ্ম সম্পাদক শিক্ষক কার্তিক সরকার। অনুষ্ঠানে স্থানীয় শিল্পীদের পরিচালনায় মনোজ্ঞ নৃত্য পরিবেশিত হয় এবং চাঁদপুর ড্রামার পরিবেশনায় অনুষ্ঠিত হয় মহাবতার শ্রী রামকৃষ্ণ নাটক। অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে শহরের বিভিন্ন প্রান্তের দর্শনার্থীসহ ভক্তবৃন্দ অনুষ্ঠানস্থলে উপস্থিত হন। অনুষ্ঠান শেষে সকলের মাঝে প্রসাদ বিতরণ করা হয়।

চাঁদপুর : স্থানীয় সংবাদ এর আরো খবর