মঙ্গলবার, ২৬ মে ২০২০
logo
পবিত্র ঈদুল আযহার প্রস্তুতি সভায় সিদ্ধান্ত
ঈদগাহে সিসি ক্যামেরা ও কমিউনিটি পুলিশিংয়ের সাথে সমন্বয় করে নিরাপত্তার ব্যবস্থা করতে হবে
প্রকাশ : ২৪ আগস্ট, ২০১৬ ১১:৫৭:৫৭
প্রিন্টঅ-অ+
চাঁদপুর ওয়েব ডেস্ক

চাঁদপুর: আসন্ন পবিত্র ঈদুল আযহা ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য ও শান্তিপূর্ণভাবে উদ্যাপনের লক্ষ্যে চাঁদপুরের জেলা প্রশাসন প্রস্তুতি সভা করেছে। গতকাল মঙ্গলবার সকালে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। জেলা প্রশাসক মোঃ আবদুস সবুর মন্ডল সভায় সভাপতিত্ব করেন। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ শাহাদাৎ হোসেন গত বছরের ঈদুল আযহার প্রস্তুতি সভার সিদ্ধান্তসমূহ পাঠ করেন। এর আলোকে সভায় উপস্থিত বিভিন্নজন বক্তব্য রাখেন।
সভায় আলোচিত নানা বিষয়ের মধ্যে যেগুলো গুরুত্ব পায় তা হচ্ছে বড় বড় ঈদ জামাত সিসি ক্যামেরার আওতায় আনতে হবে। আর নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে চাঁদপুরের সকল ঈদগাহ পরিচালনা কমিটি স্থানীয় কমিউনিটি পুলিশিং কর্মকর্তা, টহল সদস্য ও গ্রাম পুলিশদের সাথে সমন্বয় করবে। ইমামদের খুতবায় জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে বক্তব্য রাখতে এবং আরবি খুতবার বিষয়বস্তু বাংলায় অনুবাদ করে মুসলি্লদের শুনাতে আহ্বান জানানো হয়। ঈদে ঘরমুখো মানুষের যাত্রা নিরাপদ রাখতে নদী পথে চলাচলকারী যাত্রীবাহী লঞ্চ, স্টিমারে অতিরিক্ত যাত্রী বহন না করা, রাতে নদীতে বালুবাহী কোনো নৌযান চলাচল না করা এবং নৌরুটে জাল ফেলে নৌযান চলাচলে যেনো বিঘ্ন সৃষ্টি না করা হয় সে দিকে গুরুত্বারোপ করা হয়। আর সড়ক পথে যাত্রীবাহী বাসগুলো যাতে অতিরিক্ত ট্রিপ দেয়ার জন্যে সড়কে বেপরোয়া গতিতে এবং প্রতিযোগিতামূলক গাড়ি চালিয়ে কোনো দুর্ঘটনা না ঘটানো হয়। ট্রেনে দুর্ঘটনা এড়াতে ছাদে যাত্রী উঠানোর ব্যাপারে সতর্ক করা হয়।
সভায় আরো বলা হয়, নির্দিষ্ট মাঠ ছাড়া (ইজারা ব্যতীত) রাস্তায় বা রাস্তার পাশে কোরবানির পশুর হাট বসানো যাবে না। আর কোরবানির পশুর হাটের বর্জ্য এবং কোরবানির দিন পশু জবাই করে পশুর রক্ত ও বর্জ্য যেনো যত্রতত্র ফেলে রেখে পরিবেশ দূষিত করা না হয়, সে বিষয়ে সকলকে সচেতন হওয়ার ব্যাপারে গুরুত্বারোপ করা হয়। এছাড়া এবার চাঁদপুর পৌরসভার উদ্যোগে শহরে পনরটি স্পটে পশু জবাইর ব্যবস্থা করা হয়েছে। প্রতিটি ওয়ার্ডেই পৌরসভার পরিচ্ছন্নকর্মীরা কাজ করবে। সভায় বলা হয়, যেখানে সেখানে যেনো পশু জবাই করা না হয় এবং পশু জবাই করে নিজ উদ্যোগেই যেনো প্রচুর পানি ঢেলে রক্ত ও বর্জ্য অপসারণ করা হয়। এ ক্ষেত্রে কোরবানিদাতা নিজেরাই বিস্নচিং পাউডার ছিটিয়ে দিতে পারে। যদিও পৌরসভা থেকে বর্জ্য অপসারণ ও বিস্নচিং পাউডার ছিটানো হয়। তারপরও নিজেদের সচেতনতার জন্যে এবং পরিবেশ দূষণমুক্ত রাখার জন্যে নাগরিকদের নিজ দায়িত্বে কিছু করার ব্যাপারে সভায় গুরুত্বারোপ করা হয়।
সভায় বক্তব্য রাখেন স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক ওয়াহিদুজ্জামান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আশরাফুজ্জামান, চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব নাছির উদ্দিন আহাম্মেদ, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উদয়ন দেওয়ান, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি বিএম হান্নান, সাধারণ সম্পাদক সোহেল রুশদী, সাবেক সভাপতি গোলাম কিবরিয়া জীবন, শাহ মোহাম্মদ মাকসুদুল আলম, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি আলহাজ্ব ওচমান গণি পাটওয়ারী, জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ রেজাউল করিম, চাঁদপুর বন্দর কর্মকর্তা মোঃ মুস্তাফিজুর রহমান, চাঁদপুর কোস্টগার্ডের পেটি অফিসার মোঃ কামরুজ্জামান, ব্যবসায়ী আবুল কালাম পাটওয়ারী, বেগম ঐতিহাসিক জামে মসজিদের খতিব মুফতি মাহবুবুর রহমান প্রমুখ।

চাঁদপুর : স্থানীয় সংবাদ এর আরো খবর