সোমবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২১
logo
পুলিশ লাইন্সে জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস ও নাশকতাবিরোধী সুধী সমাবেশে ডিআইজি মোঃ শফিকুল ইসলাম বিপিএম
মানুষ হত্যা করে যারা বেহেশতে যেতে চায় তারা মূলত মানুষ নয়
প্রকাশ : ২৩ আগস্ট, ২০১৬ ১১:৩৫:৩০
প্রিন্টঅ-অ+
চাঁদপুর ওয়েব ডেস্ক

চাঁদপুর: আপনার সন্তান জঙ্গি হচ্ছে কি না, আপনি কিভাবে জানবেন। দেখবেন হঠাৎ করে আপনার সন্তান আপনার নামাজ, রোজা, চাকরি, ব্যবসা দৈনন্দিন জীবনের কাজ কর্ম নিয়ে আপনাকে প্রশ্ন করে। অর্থাৎ আপনি যদি ব্যাংকে চাকুরি করেন তাহলে সে বলবে ব্যাংকে চাকরি করা হারাম, কারণ ব্যাংকে সুদি কারবার হয় এবং আপনি যদি শিক্ষক হন তাহলে সে বলবে টিউশনি করা হারাম। এগুলো হচ্ছে আপনার সন্তানের জঙ্গিবাদের প্রাথমিক পর্যায়। এভাবেই জঙ্গিবাদের সৃষ্টি হয়-এরূপ ব্যাখা দিয়েছেন বাংলাদেশ পুলিশ চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি মোঃ শফিকুল ইসলাম বিপিএম। তিনি গতকাল চাঁদপুর জেলা পুলিশের আয়োজনে জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস ও নাশকতা বিরোধী সুধী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যকালে এসব কথা বলেন।
তিনি আরও বলেন, আপনার সন্তান জঙ্গি হয়েছে বা আপনার সন্তান দীর্ঘদিন যাবৎ নিখোঁজ হলে অতি দ্রুত পুলিশকে অবহিত করুন। আপনার সন্তানের মাধ্যমে আরও ১০টা মায়ের বুক খালি হওয়ার আগে আপনি পুলিশকে জানান। মানুষ হত্যা করে যারা বেহেশতে যেতে চায় তারা মূলত মানুষ নয়। তারা যদি প্রকৃত মানুষ হতে পারত তাহলে তারা মানুষ হত্যা করতে পারত না। যারা মূলত জঙ্গি হামলগুলো করছে তারা এগুলো কেউই নিজ এলাকায় করে না, অন্য এলাকায় বা অন্য জেলায় গিয়ে এ হামলাগুলো করছে বা প্রশিক্ষণ নিচ্ছে ও দিচ্ছে। আপনার এলাকায় যখন কোনো ১৮ থেকে ২৫ বছরের ছেলে বা মেয়ে যদি অল্প কিছু দিনের জন্যে বাসা ভাড়া চায় বা নিয়ে থাকে তাদের সম্পর্কেও পুলিশকে অবহিত করুন। আপনি নিজে বা নিজের এলাকাকে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার আগে পুলিশকে সহায়তা করুন।
তিনি বলেন, বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যখন সকল বাধা উপেক্ষা করে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন তখন বাংলাদেশকে আফগানিস্তান বানানোর জন্য একটি শক্তি অপচেষ্টা চালাচ্ছে। আমারা সেই জাতি, এ দেশের কোটি ঈমানদার মুসলমান আছি, যারা বুকের রক্ত দিতে পারি, মায়ের চোখের পানি মুছবার জন্য আমরা পারি না এমন কোনো কাজ নেই। বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনী আপনাদের মত ভালো মানুষদেরকে সাথে নিয়ে জঙ্গিবাদের মূলোৎপাটন করবে। এদেশকে দখল করার জন্য আইএস নাম দিয়ে বিভিন্ন অপচেষ্টা চালাবে, সে সুযোগ আর নেই। বাঙালিরা যুদ্ধ করে বুকের রক্ত দিয়ে এদেশকে স্বাধীন করেছে। আমরা কোনো ষড়যন্ত্র বা কোনো অপশক্তিকে ভয় পাই না। বাংলাদেশে পুলিশের অস্তিত্ব থাকাকালীন কোনো ষড়যন্ত্র বা অপশক্তি টিকে থাকতে পারে না। সকল অপশক্তিকে নির্মূল করে বাংলাদেশকে একটি স্বাধীন সার্বভৌম ও শান্তিপ্রিয় দেশ হিসেবে প্রমাণ করবে ইনশাআল্লাহ।
পুলিশ সুপার শামসুন্নাহারের সভাপ্রধানে ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আশ্রাফুজ্জামানের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মোঃ আবদুস সবুর মন্ডল। তিনি তাঁর বক্তব্যে বলেন, যারা জঙ্গিবাদ করছেন তারা বিভ্রান্ত। তারা কী করছেন তারা তা নিজেরাও বলতে পারছে না। তারা বাংলাদেশ ইসলামী রাষ্ট্র কায়েমের কথা বলছে, অথচ তারা সব ধর্মের লোকদেরকেই হত্যা করছে। দুর্বল চিত্তের মানুষদের মোটিভেট করা সহজ, এজন্যই তারা স্কুল ও কলেজ পড়ুয়া ছাত্র-ছাত্রীদের মাধ্যমে জঙ্গিবাদের পদ্ধতি বেছে নিয়েছে। তিনি আরও বলেন, অন্যান্য জেলার চেয়ে চাঁদপুরে জঙ্গিবাদের তেমন কোনো তৎপরতা নেই, এ ব্যাপারে চাঁদপুরের জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসন কঠোর নজরদারি করছে।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে আরও বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাছির উদ্দিন আহম্মেদ। তিনি তাঁর বক্তব্যে বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মাধ্যমে যারা ক্ষমতায় এসেছিলেন তারাই এদেশে জঙ্গিবাদের সৃষ্টি করেছে। যারা মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন মুক্তিযুদ্ধের বিরোধিতা করে পাকস্তানিদের সাথে একত্মতা করেছেন তাদের সাথে বিএনপি জোট করে ক্ষমতায় বসে এদেশকে পুনরায় পাকিস্তান বানানোর জন্য জঙ্গিবাদের সৃষ্টি করেছে। তিনি বলেন, জঙ্গি হচ্ছে মূলত ৭১-এর পরাজিত শক্তি, ৭৫-এর বঙ্গবন্ধুর খুনি, ২০১৪ পেট্রোল বোমার হামলাকারী। এরা সবাই একই সুতোয় গাঁথা।
এছাড়াও অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল, চাঁদপুর জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডার এম এ ওয়াদুদ, চাঁদপুর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. এএসএম দেলোয়ার হোসেন, স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত নারী মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ সৈয়দা বদরুন্নাহার চৌধুরী।
অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি বিএম হান্নান, চাঁদপুর জেলা কমিউনিটিং পুলিশের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জিএম শাহাবুদ্দিন আহমেদ, হাজীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আঃ রশিদ মজুমদার, মতলব উত্তর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মনজুর আহামেদ মঞ্জু, হাজীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আসম মাহবুবুল আলম লিপন, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি আলহাজ্ব ওসমান গণি পাটওয়ারী, আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি অ্যাডঃ মোঃ জহিরুল ইসলাম, দৈনিক চাঁদপুর কণ্ঠের প্রধান সম্পাদক রোটাঃ কাজী শাহাদাত, ৮নং বাগাদী ইউপি চেয়ারম্যান বেলায়েত হোসেন বিল্লাল, ইমাম সমিতির সভাপতি মাওলানা আহম সাইফুল্লাহ, তাবলীগের চাঁদপুর মারকাজ মসজিদের ইমাম মাওলানা এমদাদুল্লাহ প্রমুখ।
এছাড়াও অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন লক্ষ্মীপুর জেলার পুলিশ সুপার, এএসপি ও এএসপি সার্কেলবৃন্দ, সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডার আবুল কালাম চিশতী, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সোহেল রুশদীসহ চাঁদপুরের সকল থানার অফিসার ইনচার্জ, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ, প্রধান শিক্ষক, সহকারী শিক্ষক, কমিউনিটিং পুলিশিংয়ের নেতৃবৃন্দ ও সদস্যগণসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ।

চাঁদপুর : স্থানীয় সংবাদ এর আরো খবর