শুক্রবার, ১০ এপ্রিল ২০২০
logo
বর্ষা মৌসুম শুরু হতে না হতেই রাজরাজেশ্বর ইউনিয়নের ২৫ হাজার মানুষ পানিবন্দী
প্রকাশ : ১২ জুলাই, ২০১৬ ১৪:১০:১৭
প্রিন্টঅ-অ+
চাঁদপুর ওয়েব ডেস্ক

চাঁদপুর: বর্ষা মৌসুম শুরু হতে না হতেই চাঁদপুরের পদ্মা-মেঘনা আর ডাকাতিয়া নদীতে মারাত্মক ভাবে পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। নদীগুলো উত্তাল হয়ে উঠেছে। এর মাঝেও চরাঞ্চলের মানুষ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চাঁদপুর শহরে আসতে হচ্ছে। তবে চাঁদপুর সদর উপজেলার সবচেয়ে কষ্টের অবহেলিত ইউনিয়ন হলো রাজরাজেশ্বর ইউনিয়ন। সামান্য পানি নদীতে বৃদ্ধি পেলেই ইউনিয়নবাসী চরমভাবে ভোগান্তিতে পড়তে হয়। বর্তমানে বর্ষা মৌসুম শুরু হওয়ায় প্রায় ২০/২৫ হাজার মানুষ পানিবন্দী হয়ে পড়েছে। চাঁদপুর সদর উপজেলা ১৪টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত। এর মধ্যে রাজরাজেশ্বর ইউনিয়ন হলো সব শেষ ইউনিয়ন। রাজরাজেশ্বর ইউনিয়ন পরিষদের নব নির্বাচিত চেয়ারম্যান মোঃ হযরত আলীর সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে মোবাইলে সংযোগ পাওয়া যায়নি। পরবর্তীতে রাজরাজেশ্বর ইউনিয়ন পরিষদের ৩নং ওয়ার্ড মেম্বার পারভেজ আহমেদ রনির সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, রাজরাজেশ্বর ইউনিয়ন ৪২ বর্গমাইল নিয়ে গঠিত। এর মধ্যে ৯টি ওয়ার্ড রয়েছে। পুরো এলাকাটিই বর্ষার পানি বৃদ্ধির কারণে মানুষ পানিবন্দী হয়ে নিদারুনভাবে জীবনযাপন করতে হচ্ছে সবসময়। বর্তমানে রাজরাজেশ্বর ইউনিয়নে প্রায় ২৫ হাজার লোকের বসবাস। এর মধ্যে ১১ হাজার ২শ’ জন ভোটার রয়েছে। এসব মানুষ এখন পানিবন্দী অবস্থায় জীবনযাপন করতে হচ্ছে। চাঁদপুর সদর উপজেলার সাথে এই ইউনিয়নের যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম হলো ইঞ্জিন চালিত নৌকা। পানি বৃদ্ধির ফলে যোগাযোগ রক্ষায় এই ইউনিয়নের মানুষ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে উত্তাল নদী পারি দিয়ে শহরে আসতে হচ্ছে। বলাচলে এটি একটি দ্বীপের মতো। ৫টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ১টি উচ্চ বিদ্যালয় ও ১টি মাদ্রাসা রয়েছে। নেই কোনো চিকিৎসা কেন্দ্র। অসুস্থ্য রোগীদেরকে এই উত্তাল নদী পারি দিয়ে চাঁদপুরে আসতে হচ্ছে। বর্তমানে পদ্মা ও মেঘনা নদীতে প্রবল ¯্রােত বহমান রয়েছে।

চাঁদপুর : স্থানীয় সংবাদ এর আরো খবর