শনিবার, ১৫ আগস্ট ২০২০
logo
রোয়ানু আতঙ্কে ঘর থেকে বের হয়নি মানুষ
মতলব দক্ষিণে ঘুর্নিঝড়ে ফসল ও রাস্তাঘাটের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি
প্রকাশ : ২২ মে, ২০১৬ ১১:৩৩:৪৯
প্রিন্টঅ-অ+
চাঁদপুর ওয়েব ডেস্ক

চাঁদপুর: ধেয়ে আসছে ঘুর্নিঝড় ‘রোয়ানু’ এ আতঙ্কে বাসা বাড়ি থেকে বের হয়নি সাধারণ মানুষ। কর্মজীবী কেউ কেউ বের হলেও বেশিরভাগ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানই ছিল বন্ধ। স্কুল কলেজ ও মাদ্রাসাগুলো ছিল শিক্ষার্থী শূন্য। ভয় আর আতঙ্কের মধ্যে সময় কেটেছে মতলবের সর্বস্তরের মানুষ। ঘুর্নিঝড় ‘রোয়ানু’ মতলবের কোথাও আঘাত হানেনি এবং বড় ধরনের দুর্ঘটনার খবরও পাওয়া যায়নি। তবে দু’দিনের বিরামহীন ঝড়ো হাওয়ায় ও প্রবল বর্ষণে উপজেলার পৌরসভাসহ বিভিন্ন ইউনিয়নে ফসলাদি গাছ পালা ও রাস্তা-ঘাটের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।এতে জনজীবন বিপদগ্রস্ত হয়ে পড়েছে। অপরদিকে গত শুক্রবার রাত থেকে মতলব শহরসহ উপজেলায় ছিলোনা বিদ্যুৎ।
    ঘুর্নিঝড়ে পৌরসভাসহ ৬টি ইউনিয়নের প্রায় শতাধিক কাঁচা রাস্তা ভেঙ্গে গেছে এবং ধান, ভূট্রাও মরিচসহ গাছপালার ব্যাপক ক্ষতিসাধন হয়েছে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান। তবে সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়েছে পৌরসভা এলাকায়। নায়েরগাও উত্তর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ মিজানুর রহমান সেলিম জানান, এ ইউনিয়নে কোথাও বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটেনি। তবে কর্মসূটি ও কর্মসৃজন করা প্রতিটি রাস্তায় পানি জমে বড় বড় গর্ত হয়ে বিভিন্ন স্থানে ভেঙ্গে গেছে। এছাড়া বিভিন্ন জাতের গাছ ও গাছের ডালাপালা ভেঙ্গে গেছে। নায়েরগাঁও দক্ষিণ ইউনিয়নের নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, তার ইউনিয়নে গাছপালা ফসলাদীসহ রাস্তাঘাটের ক্ষতি হয়েছে। খাদেরগাঁও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল হাই জানান, এ ইউনিয়নের তেমন ক্ষতি হয়নি। তিনি প্রতিটি ওয়ার্ডে খোঁজ-খবর নিয়েছেন। নারায়ণপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ জহিরুল মোস্তফা তালুকদার জানান, তার ইউনিয়নটি যেহেতু অন্য ইউনিয়নের চেয়ে বড় ক্ষতির পরিমান বেশী কর্মসৃজন ও বিভিন্ন প্রকল্পের অর্থায়নে করা প্রতিটি কাঁচা রাস্তা বৃষ্টির পানি জমে গর্ত হয়ে বিভিন্ন স্থানে ভেঙ্গে গেছে। উপাদী উত্তর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ শহীদ উল্লাহ ও উপাদী দক্ষিণ ইউনিয়নের নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যান মোঃ গোলাম মোস্তফা জানান, তাদের ইউনিয়নগুলোতে বড় ধরণের তেমন ক্ষতি হয়নি তবে কাঁচা রাস্তাসহ ফসলাদির কিছু ক্ষতি হয়েছে। মতলব পৌরসভার মেয়র আওলাদ হোসেন লিটন জানান, গত দু’দিনের প্রবল বর্ষণে ও ঘুর্নিঝড়ে পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডের রাস্তা-ঘাট, গাছপালার ক্ষয় ক্ষতি হয়েছে। উপজেলা কৃষি অফিসার মোঃ তাজুল ইসলাম জানান, প্রবল বর্ষণে ভুট্রা ও ধানের কিছু ক্ষতি হয়েছে।
 

চাঁদপুর : স্থানীয় সংবাদ এর আরো খবর