রোববার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০
logo
চাঁদপুর প্রেসক্লাব প্রাঙ্গণে মাসব্যাপী বৈশাখী আনন্দ মেলা জমে উঠেছে
প্রকাশ : ০৭ এপ্রিল, ২০১৬ ১০:৩৫:৪৯
প্রিন্টঅ-অ+
চাঁদপুর ওয়েব ডেস্ক

চাঁদপুর: চাঁদপুর প্রেসক্লাব প্রাঙ্গণে ক্রেতা ও দর্শনার্থীদের আনাগোনার জমে উঠেছে মাসব্যাপী বৈশাখী আনন্দ মেলা। গত ২৩ মার্চ এ মেলার ফিতা কেটে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক মোঃ আব্দুস সবুর মন্ডল। এ মেলা চলবে আগামী ২৩ এপ্রিল পর্যন্ত। উদ্বোধনী দিন থেকে প্রথম ক' দিন মেলায় তেমন কোনো দর্শনার্থীর উপস্থিতি দেখা না গেলেও সাত আট দিন পর থেকে ধীরে ধীরে মেলায় ছোট বড় অনেক ক্রেতা ও দর্শনার্থীর উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে। গতকাল ৬ এপ্রিল সন্ধ্যায় মেলার ১৫তম দিনেও ছিলো ক্রেতা সাধারণের ভিড়। তবে এই ক্রেতা সাধারণের মধ্যে বেশির ভাগ নারী ও স্কুল কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থী।
সরজমিনে গিয়ে দেখা যায় চাঁদপুর প্রেসক্লাব ভবনের নিচ তলা থেকে শুরু করে সামনের মাঠ জুড়ে বিভিন্ন স্টল সাজিয়ে মেলার আয়োজন করা হয়েছে। মেলায় শোভা পাচ্ছে দেশী বিদেশী থ্রি পিছ, ইরানী থ্রি পিছ, ইরানী বোরকা, বৈশাখী থ্রি পিছ, বৈশাখী জুতা, লেদার গিফট সামগ্রী, জুয়েলারী সামগ্রী, কসমেটিকস, ফুলের টব, মাটির ফুলদানি, মাটির গ্লাস, মাটি দিয়ে তৈরি গ্রাম বাংলার দৃশ্য, মাটির ব্যাংক, বঙ্গবন্ধু, রবীন্দ্রনাথ ও কাজী নজরুল ইসলামের প্রতিকৃতি, রাজা রাণীর মুখোশ, খেলনা সামগ্রীসহ লোকজ পণ্য। তবে পুরো মেলা জুড়ে বেশির ভাগই রয়েছে কসমেটিকস্, থ্রি পিছ ও মাটির শো পিছ এবং শিশুদের খেলনা সামগ্রী। মেলায় বিশেষ আর্কষণ হলো নিউ নররূপা টেক্সটাইলের ৯শ' ৯৯ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে তিন সেট থ্রি পিছ। থ্রি পিছের মান ও কোয়ালিটি দেখে ক্রেতারা তা ক্রয় করছেন সানন্দে। এছাড়া মেলায় রয়েছে নীলিমা কসমেটিকস্, সুমাইয়া কসমেটিকস্, ফারহানা কসমেটিকস্, মাটির শো পিছ, ভাই ভাই কসমেটিকস্সহ বিভিন্ন পণ্যের সর্বমোট ৩০টি দোকান। এসব দেকানে সর্বোচ্চ ১২০ টাকায় বিভিন্ন আইটেমের কসমেটিকস্ সামগ্রী পাওয়া যাচ্ছে। এর বাইরে রয়েছে খাবারের জন্য চটপটি ও হালিমের দোকান এবং রয়েছে যাদু শেখার জন্য একটি ব্যতিক্রমী দোকান। সবকিছু মিলিয়ে মাসব্যাপী বৈশাখী আনন্দ মেলার আয়োজনে প্রেসক্লাব প্রাঙ্গণ সেজেজে ভিন্ন রূপে। মেলাকে আরো জাঁকজমকপূর্ণ করে তুলতে প্রতিদিনিই মেলায় সাউন্ড সিস্টিমে বাজছে বিভিন্ন শিল্পীর কণ্ঠে গাওয়া জনপ্রিয় গান। সব কিছু মিলিয়ে মাসব্যাপী বৈশাখী আনন্দ মেলা দারুনভাবে জমে উঠেছে।
মেলার আয়োজক মোঃ মাসুদ মুন্সি জানান, প্রথম ৩/৪ দিন মেলা তেমন না জমলেও তার ক' দিন পরই মেলায় ক্রেতাদের ভিড় বাড়তে থাকে। মাসব্যাপী মেলার ১৫ দিন অতিবাহিত হয়েছে। আশা করছি বাকি ১৫ দিনে এই মেলা আরো ভালো ভাবে জমে উঠবে। আর মেলায়া যাতে দর্শনার্থী বা ক্রেতারা স্বল্প দামে কিছু ক্রয় করতে পারে সেজন্যে আমরাও ব্যবসায়ীরা অনেক আইটেমের পণ্যের অনেক মূল্য ছাড় দিয়েছি।
এদিকে আর অল্প ক' দিন পরই চাঁদপুর প্রেসক্লাবের পেছনে ডাকাতিয়া নদীর পাড়ে উদ্যাপিত হবে তিন দিনব্যাপী বৈশাখী মেলা। সেখানেও এই মেলা আয়োজকদের বিভিন্ন পণ্য সামগ্রীর দোকান থাকবে।
 

চাঁদপুর : স্থানীয় সংবাদ এর আরো খবর