বৃহস্পতিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০১৯
logo
চাঁদপুরে ১২টি ইউনিয়নে বিএনপি সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থীদের নির্বাচন বর্জন
সংঘর্ষ , ব্যালট পেপার ছিনাতাইসহ নানা অনিয়মের মধ্যদিয়ে চাঁদপুরের ১৮টি ইউনিয়নের নির্বাচন সম্পন্নঃ পুলিশ অন্তত ১৫ রাউন্ড গুলি ছোড়ে
প্রকাশ : ৩১ মার্চ, ২০১৬ ২০:১০:৫৯
প্রিন্টঅ-অ+
শরীফ চৌধুরী

চাঁদপুর: সংঘর্ষ , ব্যালট পেপার ছিনাতাই, প্রিজাইডিং কর্মকর্তাকে মারধর, জাল ভোট প্রয়োগসহ নানা অনিয়মের মধ্যদিয়ে  চাঁদপুরের ১৮টি ইউনিয়নের নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। সকাল ১১টার পরই ১০টি কেন্দ্রের ভোট গ্রহন স্থগিত করা হয় । এ ছাড়া অনিয়ম আর কারচুপির অভিযোগ এনে ১২টি ইউনিয়নে বিএনপি সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থীরা দুপুরে সাংবাদিক সম্মেলনের করে নির্বাচন বর্জন করেন । কেন্দ্রের  পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ অন্তত ১৪ রাউন্ড গুলি ছোড়ে।
        ব্যাপক অনিয়ম, কেন্দ্র দখল,জাল ভোট প্রদান ও সন্ত্রাসী হামলার অভিযোগ এনে চাঁদপুর সদরের ১২টি ইউনিয়নের মধ্যে ৬ ইউনিয়নে বিএনপির চেয়ারম্যান প্রার্থীরা তাদের নির্বাচন আনুষ্ঠানিকভাবে বর্জনের ঘোষণা করেন। দুপুর ১টায় চাঁদপুর প্রেসক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলন করে এই বর্জনের ঘোষণা দেন। এসময় তারা সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে পূনরায় নির্বাচনের দাবি করেন। বর্জনকারী চেয়ারম্যান প্রার্থীরা হচ্ছেন চাঁদপুর সদরের তরপুরচন্ডি ইউনিয়নের সরদার রফিকুল ইসলাম,কল্যান ইউনিয়নের প্রাথী সাইফুল আলম খান, আশিকাটি ইউনিয়নের দেলোয়ার হোসেন মাস্টার,বাগাদী ইউনিয়নের মোহাম্মদ আলী পাঠান,চান্দ্রা ইউনিয়নের শাহজাহান খান ও রামপুর ইউনিয়নের জাকির হোসেন তালুকদার। বর্জন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন চাঁদপুর সদর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাড.শামছুল ইসলাম মন্টুসহ বিএনপি ও অংগ সংগঠন নেতাকর্মী।
এদিকে দুই উপজেলার ১৮টি ইউনিয়নের শান্তিপূর্ন ভোটগ্রণ শুরু হলেও সকাল ১০টার পর থেকে চাঁদপুর সদর ও হাইমচর উপজেলার কয়েকটি কেন্দ্রে ব্যালট পেপার ছিনতাই ও জাল ভোটকে কেন্দ্র করে ভোট গ্রহণ স্থগিত রাখা হয়। এর মধ্যে সকাল ১০টায় চাঁদপুর সদরের মৈশাদী ইউনিয়ন পরিষদ কেন্দ্রে নৌকার সমর্থরা কেন্দ্র দখল করে জাল দিয়ে ব্যালট বাক্স ভোট ভর্তি করে। পরে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আতাউর রহমান সেখানে গিয়ে ভোট গ্রহণ বন্ধ ঘোষণা করেন। একই সময় সদর উপজেলার লোধের গাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ লোকজন কেন্দ্র দখল করার চেস্টা করলে সেখানে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ১২ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোঁড়ে। একই সময় সদর উপজেলার তরপুরচন্ডি,আশিকাটি,কল্যানপুর ও রামপুর,বাগাদী ও চান্দ্রা ইউনিয়নে নৌকার সমর্থরা বিভিন্ন কেন্দ্র দখল করে এক তরফা ব্যাপক সিলিং করায় বিএনপি চেয়ারম্যান প্রার্থীরা বেলা ১২টা থেকে নির্বাচন বর্জন করার ঘোষণা দেন।
     হাইমচর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সারওয়ার কামাল জানান, হাইমচরের চরভৈরবী ইউনিয়নের আজিজিয়া মাদ্রাসা কেন্দ্রে জাল ভোট দেয়া কে কেন্দ্র ও প্রিসাইডিং অফিসারকে মারধর করার অভিযোগে স্থায়ীভাবে নির্বাচন স্থগিত করে দেয়া হয়।  এ সময় সেখানে পুলিশ দুই রাউন্ড গুলি ছোড়ে।
     চাঁদপুরের পুলিশ সুপার শামসুন্নাহার বলেন,বিভিন্ন কেন্দ্রে বিভিন্ন ধরনের অভিযোগ পাওয়ায় পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ফাকা গুলি ছোড়া হয় বলে স্বীকার করেন। তবে এর কোনো হিসেব দিতে পারেননি। এসময় বেশ কয়েকজনকে আটক করা হয় বলে জানান পুলিশ সুপার।
    হাইমচর ও চাঁদপুর সদর উপজেলার ১৮টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৬৭, সাধারণ সদস্য পদে ৪২৮জন ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ১৪৬জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। চাঁদপুর সদর উপজেলার ১২টি ইউনিয়নে ১শ ১৮টি কেন্দ্রে ৫শ ৩৪টি বুথে ভোট দেবেন ১লাখ ৭৬ হাজার ৮শ ৪৬জন  এবং হাইমচর উপজেলার ৬টি ইউনিয়নে মোট ৫৮টি কেন্দ্রে ২শ ৫৫টি বুথে ভোট দিনে ৭৭হাজার ৪শ ২২জন ভোটার ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।
    চাঁদপুরের পুলিশ সুপার শামছুন্নাহার জানান, চাঁদপুরের দুই উপজেলার  মোট ১৭৬টি কেন্দ্রের মধ্যে সবগুলোকেই গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে ধরে আইন শৃংখলা বাহিনী মোতায়েন করা হয় । যদিও পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে মোট ১৩৭ কেন্দ্রকে গুরুত্বপূর্ণ বা ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। এর মধ্যে ৪২টি কেন্দ্র বিস্তীর্ণ চরাঞ্চলে পড়েছে। মাত্র ৩৯টি কেন্দ্রকে সাধারণ কেন্দ্র হিসেবে সনাক্ত করা হয়েছে বলে জানান তিনি।
   এসব কেন্দ্রে ৪ হাজার ৭শ ৭০জন আইন শৃংখলা বাহিনী মাঠে কাজ করছে। এদের মধ্যে  ৪৫ সদস্যের ৯ প্লাটুর বিজিবি, ৪৮ জন র‌্যাব, পুলিশ ১৩শ ১৪ জন । এছাড়া  ৬জন নিবার্হী ম্যাজিস্ট্রেট ও ২জন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মাঠে কাজ করছে। আনসার সদস্য ৯টি মোবালই টিম মাঠে ছিল। এছাড়া সদর উপজেলায় ৮ ও হাইমচর উপজেলায় ৪টি স্ট্রাইকিং ফোর্স আইন-শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে থাকছে।
প্রশাসন নির্বাচনের আগে সুষ্ঠ ভাবে ভোট গ্রহনের ব্যবস্থা নেবে বলে প্রতিশ্রুতি দিলেও বন্ধ করা যায়নি নির্বাচনে অনিয়ম । সবগুলো ইউনিয়নেই আওয়ামীলীগ সমর্থিত প্রার্থীরা জোর করে কেন্দ্র দখল করেছে বলে সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করেছেন সদর থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এড. সামসুল ইসলাম মন্টু ।
 

চাঁদপুর : স্থানীয় সংবাদ এর আরো খবর