বুধবার, ২৪ অক্টোবর ২০১৮
logo
সঙ্গীত নিকেতনের উচ্চাঙ্গ সংগীত অনুষ্ঠান
সঙ্গীত নিয়ে সাধনা না থাকলে প্রকৃত শিল্পী হওয়া যাবে না
প্রকাশ : ২৭ জুন, ২০১৪ ১০:০৬:২৪
প্রিন্টঅ-অ+
চাঁদপুর ওয়েব ডেস্ক

চাঁদপুরঃ চাঁদপুর সঙ্গীত নিকেতনের আয়োজনে উচ্চাঙ্গ সংগীত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক ও সঙ্গীত নিকেতনের সভাপতি মোঃ ইসমাইল হোসেন বলেছেন, গুরুর প্রতি শতভাগ শ্রদ্ধা এবং সঙ্গীত নিয়ে সাধনা না থাকলে প্রকৃত শিল্পী হওয়া যাবে না। গতকাল ২৭ জুন বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টায় জেলা শিল্পকলা একাডেমী মিলনায়তনে উচ্চাঙ্গ সংগীত শুরুর পূর্বে সংক্ষিপ্ত আলোচনা পর্বে জেলা প্রশাসক মোঃ ইসমাইল হোসেন আরো বলেন, উচ্চাঙ্গ সংগীত খুব কঠিন একটা কাজ। উচ্চাঙ্গ সংগীত নিয়ে এখন আর বিভাগীয় পর্যায়ে খুব একটা প্রতিযোগিতা হচ্ছে না। এর কারণ উচ্চাঙ্গ সংগীতের উপর অধিকাংশ শিল্পীগোষ্ঠী গুরুত্ব না দেয়ায় প্রতিযোগী বের হচ্ছে না। এ ক্ষেত্রে চাঁদপুর অন্যান্য জেলা থেকে ব্যতিক্রম। এখানে অনেক শিল্পীগোষ্ঠীই আছেন যারা উচ্চাঙ্গ সংগীতের মতো কঠিন কাজটি চর্চা করে যাচ্ছে। যে কারনে জাতীয় পর্যায়ে সঙ্গীতাঙ্গনের বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় চাঁদপুরের ক্ষুদে শিল্পীরা বিভিন্ন পর্যায়ে জাতীয় পুরস্কার পেয়ে চাঁদপুরের সুনাম ধরে রেখেছে। তিনি আশা প্রকাশ করে বলেন, আগামী দিনে আমাদের দেশীয় সংগীত আরো বেশি এগিয়ে যাবে।
    সংগীত নিকেতনের সাধারণ সম্পাদক জীবন কানাই চক্রবর্তীর পরিচালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা পুলিশ সুপার মোঃ আমির জাফর, চাঁদপুর সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মিহির লাল সাহা, হাজীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ, প্রফেসর মিহির কান্তি রায়। উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মাসুদ আলম সিদ্দিকী, জেলা শিল্পকলার কালচারাল অফিসার আবু সালেহ মোঃ আব্দুল্লাহ, সংগীত নিকেতনের অধ্যক্ষ স্বপন সেন গুপ্ত, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী শাহেদুর রহমান চৌধুরীসহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। এদিন আমন্ত্রিত কন্ঠশিল্পী অলকা দাশ ও স্বর্ণময় চক্রবর্তীর গাওয়া উচ্চাঙ্গ সংগীত উপস্থিত শ্রোতাদের মুগ্ধ করে ফেলে।
 

চাঁদপুর : স্থানীয় সংবাদ এর আরো খবর