সোমবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২১
logo
গভীর রাতে মুহুর্মুহু পটকা, বিড়ম্বনায় মুসল্লিরা
প্রকাশ : ২৩ মে, ২০১৬ ১১:৫১:২৩
প্রিন্টঅ-অ+
রাজধানী ওয়েব

ঢাকা: গভীর রাতে মুহুর্মুহু পটকার আওয়াজে রাজধানীবাসীর কান ঝালাপালা হওয়ার উপক্রম। আবার যারা রাত জেগে আল্লাহর নৈকট্য লাভের আশায় নামাজ আদায় করছেন তাদের জন্যও এ এক চরম বিড়ম্বনার।
রোববার দিবাগত রাত ১২টার পর থেকে রাজধানীর মোহাম্মদপুর, মিরপুর কলাবাগান, আজিমপুরসহ বেশ কয়েকটি এলাকায় কিছু কিছু পটকা ফোটানোর খবর পাওয়া যায়। তবে রাত বাড়ার সাথে সাথে বেড়ে যায় কয়েক গুণ।
মোহাম্মদপুরের বেশ কয়েকজন বাসিন্দা রাতে মোবাইল ফোনে জানান, সেখানে রাত ১২টা থেকেই পটকা ফোটানো শুরু হয়। তবে দেড়টার দিকে পটকা ফোটানোর মাত্রা চলে যায় অসহনীয় পর্যায়ে। একের পর এক পটকা ফুটতে থাকলেও রাস্তায় কোন পুলিশ দেখা যায়নি বলেও অভিযোগ করেন অনেকে।
এই প্রতিবেদকের কাছে রাত ২টার দিকে মোহাম্মদপুর হাউজিং সোসাইটি থেকে সজল নামের এক যুবক ফোন করে বলেন, ‘ভাই ডিএমপির এতো নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও তো চারিদিকে বৃষ্টির মতো পটকা ফোটানো হচ্ছে। পটকার আওয়াজে তো কান ঝালাপালা। বৃদ্ধ মা, ঠিক মতো নামাজ বা কোরআন শরিফ পড়তে পারছে না এই আওয়াজে।’
মিরপুর থেকে অনিক নামের এক শিক্ষার্থী ফোন করে জানান, সেখানে রাত বাড়ার সাথে সাথে অসহনীয় মাত্রায় পটকা ফোটানো শুরু হয়েছে। বিকট শব্দের পটকার আওয়াজে নামাজ বা কোরআর তেলাওয়াতে মনযোগ দিতে পারছেন না মুসল্লিরা।
এই উটকো বিড়ম্বনা নিয়ে রাজধানীর আরো বেশ কয়েকটি এলাকা থেকে ফোন আসতে থাকে এই প্রতিবেদকের কাছে।
অথচ রোববার সকালে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের গণমাধ্যম শাখার পুলিশের উপকমিশনার মারুফ হোসেন সরদার রাজধানীবাসীকে আরো একবার মনে করিয়ে দেন, শবে বরাতের রাতে কোনো প্রকার পটকা বা আতশবাজি ফোটানো যাবে না।
এর আগে ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া এক সংবাদ বিবৃতিতে জানান, শনিবার সন্ধ্যা ৬টা হতে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত পবিত্র শবে বরাত উপলক্ষে কোনো প্রকার ক্ষার জাতীয় বা বিস্ফোরক দ্রব্য, আতশবাজি, পটকাবাজি, অন্যান্য ক্ষতিকারক ও দূষণীয় দ্রব্য বহন এবং ফোটানো নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। কেউ যদি এটা করে তাহলে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।
এছাড়াও শবে বরাতের আগের জুমাবারে বিভিন্ন মসজিদে ডিএমপি লিফলেট বিতরণ করে এ বিষয়ে সতর্কতা জারি করা হয়েছে বলেও জানান মারুফ হোসেন সরদার।
গভীর রাতে পটকা ফোটানোর বিষয়ে আদাবর থানার ওসি শাহিনুর রহমানের সাথে কথা হলে তিনিও একই কথা বলেন। তিনি বাংলামেইলকে বলেন, ‘পুলিশ কমিশনারের নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা পাড়া মহল্লা থেকে শুরু করে মসজিদে মসজিদেও লিফলেট দিয়ে সকলকে পটকা ফোটানো থেকে বিরত থাকার জন্য বলেছি। তারপরও যদি কেউ পটকা ফোটায় অবশ্যই তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।’
এদিকে প্রতি বছরের মতো এবারও পবিত্র শবে বরাত পালিত হচ্ছে ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে। এ রাতে দেশের ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা মহান আল্লাহ তায়ালার সন্তুষ্টি লাভে সারারাত জেগে ইবাদত-বন্দেগি করেন। এ রাতকে মন্দ লোকেরাও ইজ্জত করেন, তাই তারা শবে বরাতে মন্দ কাজ থেকে বিরত থাকেন।

রাজধানী এর আরো খবর