মঙ্গলবার, ১২ নভেম্বর ২০১৯
logo
কোরবানির পশুর চামড়ার দাম ঠিক করে দিল মন্ত্রণালয়
প্রকাশ : ২২ আগস্ট, ২০১৭ ১২:৩২:৫২
প্রিন্টঅ-অ+

আসন্ন ঈদুল আজহা উপলক্ষে পশুর চামড়ার দাম নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছে। এবার কোরবানির ঈদে ঢাকায় প্রতি বর্গফুট গরুর চামড়া কিনতে হবে ৫০ থেকে ৫৫ টাকা দরে। ঢাকার বাইরে ৪০ থেকে ৪৫ টাকা। এ ছাড়া খাসির চামড়া সারা দেশে ২০ থেকে ২২ টাকা এবং বকরির চামড়া ১৫ থেকে ১৭ টাকায় কিনতে হবে।

আজ রোববার বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে আয়োজিত এক আন্তমন্ত্রণালয় সভায় এই চামড়ার দাম নির্ধারণ করা হয়। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এই সভায় সভাপতিত্ব করেন মন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। এতে বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা ছাড়াও চামড়াশিল্পের সঙ্গে জড়িত ব্যবসায়ীরা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠক শেষে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেন, আজকের বৈঠকে সর্বসম্মতভাবে এই দাম নির্ধারণ করা হয়। সভায় কেবল তিনটি জাতের প্রাণীর চামড়ার দাম নির্ধারণ করা হয়েছে। এ ছাড়া এই হার অনুযায়ী মহিষ, উটসহ অন্য কোরবানিযোগ্য প্রাণীর চামড়ার দর নির্ধারণ করে নেবেন ক্রেতা-বিক্রেতা।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, এবার এক কোটি ১৫ লাখ ৫৭ হাজার পশু কোরবানি হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এর মধ্যে গরু ও মহিষ ৪৪ লাখ ৫৭ হাজার। ছাগল ও ভেড়া ৭১ লাখ। এ সংখ্যা নির্ধারণ করা হয়েছে গতবারের পশুর সংখ্যার ওপর। গত বছর কোরবানি হয়েছিল এক কোটি চার লাখ পশু। সে হিসেবেই এবার সম্ভাব্য সংখ্যা হিসাব করা হয়েছে।

আন্তর্জাতিক বাজারমূল্যের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখেই এবার চামড়ার দাম ঠিক করা হয়েছে বলে জানান তোফায়েল আহমেদ। তিনি বলেন, অন্য বছর লবণের যে সংকট দেখা দেয়, এবার যেন সেই সংকট না হয়, সে জন্য লবণ সরবরাহ নিশ্চিত করা হবে। সেই সঙ্গে লবণের দাম যেন স্থিতিশীল থাকে, সেটাও লক্ষ রাখা হবে।

মন্ত্রী আরো বলেন, জুতাসহ চামড়াজাত পণ্য রপ্তানির প্রতিযোগিতায় সক্ষমতা বৃদ্ধির নীতি গ্রহণ করেছে সরকার। কাঁচা চামড়া রপ্তানি না করে প্রক্রিয়াজাত করে ফিনিশড লেদার রপ্তানি করলে মূল্যমান বেশি পাওয়া যায়। কেননা, উন্নতমানের রপ্তানিযোগ্য চামড়াজাত পণ্য তৈরিতে ফিনিশড লেদার ব্যবহার করা হয়।

ব্যবসা-অর্থনীতি এর আরো খবর