বুধবার, ২৬ জুন ২০১৯
logo
বাজারে এসেছে বেঙ্গল মিটের ৩টি নতুন চিকেন কাবাব
প্রকাশ : ০৮ মার্চ, ২০১৭ ১২:২০:১০
প্রিন্টঅ-অ+
ব্যবসা ওয়েব
ঢাকা: বেঙ্গল মিট বাজারে নিয়ে আসলো চমৎকার স্বাদ আর সুগন্ধযুক্ত তিনটি মজাদার নতুন মেরিনেটেড চিকেন কাবাব। এগুলো হলো- চিকেন রেশমি মালাই, চিকেন কালি মির্চ এবং চিকেন টাংরি কাবাব।

এই কাবাবগুলো ফাইভ স্টার শেফের তত্ত্বাবধায়নে, ভারতীয় উপমহাদেশের বিখ্যাত সব কাবাবের রেসিপি দ্বারা অনুপ্রাণিত এবং অসাধারণ সব ভিনদেশি মশলায় তৈরি।

গ্রিল করা ছাড়াও এই কাবাবগুলো খুব অল্প সময়ে সামান্য তেলে প্যান-ফ্রাই করে সহজেই তৈরি করা যাবে। কাবাবগুলো টরটিলা, রুটি, রোল, ভাতের সাথে অথবা প্রোটিনযুক্ত স্ন্যাক্স হিসেবে যখন তখন খাওয়া যাবে। তা ছাড়া এই কাবাবের স্বাদের অনন্যতার কারণে রুটি অথবা অন্যকিছু ছাড়াও খাওয়া যাবে।

সম্প্রতি উদ্বোধন করা মগবাজারের নতুন গরম্যাট বুচার শপসহ বেঙ্গল মিটের অন্যান্য গরম্যাট বুচার শপ-এ এই কাবাবগুলো পাওয়া যাচ্ছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জনপ্রিয় তারকা-শেফ সৈয়দ তোজাম্মল হক তারেক, মিডিয়া ব্যক্তিত্ব বিজরী বরকতুল্লাহ, রন্ধন শিল্পী দিল আফরোজ সাইদা, বেঙ্গল মিটের সি ই ও এ এফ এম আসিফ এবং বেঙ্গল মিট-এর উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাসহ আরো অনেকে।

“গরম্যাট বুচার শপ”নামের এই নতুন আউটলেট-এ বেঙ্গল মিট-এর অন্যান্য পণ্যও পাওয়া যাবে, সাথে আরো থাকবে নিজেদের বিশেষ স্বাদের চিকেন চিজ কাবাব।

এ উপলক্ষ্যে এই আউটলেট-এ হয়েছে তিন দিনব্যাপী ‘কুক মাই ফুড’ নামের প্রমোশনাল ক্যাম্পেইন, যেখানে ভোক্তারা সরাসরি শেফ দ্বারা তৈরি করে কাবাবের স্বাদ নিতে পেরেছেন।

সরাসরি রান্না দেখার সুযোগও ছিল সেখানে। ভোক্তারা দেখেছেন কিভাবে কাবাবগুলো সহজেই বাসায় রান্না করা যায় আর ছিল আউটলেট থেকে বিনামূল্যে রান্না করে নিয়ে যাওয়ারও সুযোগ।

বেঙ্গল মিটের সি ই ও জনাব এ এফ এম আসিফ বলেন, “বেঙ্গল মিট-এ আমরা সর্বদা চেষ্টা করি ভোক্তাদের জন্য নতুন নতুন সুবিধাজনক এবং পুষ্টিগুণসম্পন্ন পণ্য নিয়ে আসতে যা তাদের জীবনযাত্রাকে আরো সহজ করে তুলবে। আমাদের রয়েছে বিভিন্নধরনের পণ্য যা রন্ধনশিল্পে যুক্ত করে নতুন মাত্রা এবং এই বৈশিষ্ট ভোক্তাদের অনুপ্রাণিত করে পরিবার নিয়ে একত্রে মজাদার খাবারের স্বাদ নিতে।”

তারকা-শেফ সৈয়দ তোজাম্মল হক তারেক বলেন, “বেঙ্গল মিটের গুনগত মান আর এর খাবারের বৈচিত্রের জন্য বর্তমান সময়ে বাংলাদেশে অতি সুপরিচিত। প্রায় প্রতি ঘরে ঘরেই এখন পাওয়া যায় বেঙ্গল মিটের কোনো না কোনো পণ্য। সব ধরনের ভোক্তার কাছে বেঙ্গল মিট তার পণ্য সহজলভ্য করে তুলছে দিন দিন। সহজে রান্নার উপযোগী এর বিভিন্ন পণ্য আমাদের জীবনেও আনছে বিচিত্র।”

বর্তমান সময়ে বাংলাদেশে অতি সুপরিচিত একটি নাম বেঙ্গল মিট,  দেশের সবার জন্য একটি অনুপ্রেরণাও বটে। এটি দেশিয় বাজারকে আরো সমৃদ্ধ করেছে তাদের গুণগত মানের নতুন স্বাদের ফুড এক্সপেরিয়েন্স নেয়ার সহজ সুযোগ করে দিয়ে। আশা করি এই নতুন খাবারগুলো বেঙ্গল মিটকে আরো এগিয়ে নিয়ে যাবে ও নতুন উচ্চতায় পৌঁছে দিবে।

ব্যবসা-অর্থনীতি এর আরো খবর