শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯
logo
ছেলে জন্ম দেয়ার জন্যই যেন মেয়েরা: তসলিমা
প্রকাশ : ০৫ আগস্ট, ২০১৬ ১৫:০৪:৪৪
প্রিন্টঅ-অ+
প্রবাস ওয়েব

চাঁদপুর: পুরুষ বিদ্বেষী হিসেবে পরিচিত, বিতর্কিত ও নির্বাসিত লেখিকা তসলিমা নাসরিন বলেছেন, মেয়েদের জন্মই যেন ছেলে জন্ম দেয়ার জন্য। মায়েরা ছেলেদের আদর করে করে এমন ভাবে বড় করে তুলে যে, বিয়ের পর বউয়ের সঙ্গে শুতেও জানে না।
মঙ্গলবার দুপুরে তার ফেসবুকে দেয়া এক স্ট্যাটাসে এসব কথা বলেন তসলিমা নাসরিন।
তসলিমা লিখেছেন, ছেলে-বাচ্চাদের যে কী করে বড় করে বাঙালি মায়েরা! আমার এক বন্ধুর ছেলে অ্যকসিডেন্টে মারা গিয়েছিল, ছেলেটিকে তো ভগবান ভেবে পুজো করতো ছেলেটির মা। পূজোর ঘরে ঠাকুরদের মূর্তির পাশে ছেলেটির একটি ফটো রাখতো। মেয়েদের জন্মই যেন ছেলে জন্ম দেওয়ার জন্য, আর সেই ছেলের সেবায় জীবন উৎসর্গ করার জন্য। বুড়ো ধাড়ি হওয়ার পরও মুখে তুলে খাইয়ে দেবে। সারাক্ষণই চোখে চোখে রাখবে। কোথায় যাচ্ছে, কী করছে। বন্ধুদের সঙ্গে মিশতে বারণ করবে।
তিনি আরো লিখেছেন, আমার বেশ কয়েকজন বন্ধুকে দেখেছি, তারা ছেলেকে নিজের বিছানায় শোয়ায়। ছেলের ১৫/১৬ বছর বয়স হয়ে গেলেও। মায়ের সঙ্গে শুয়ে শুয়ে ছেলেরা পরে আর বউএর সঙ্গে শুতে পারে না। আমার এক বন্ধুর স্বামী তো তাই করতো। বাসর রাতেও সে বউএর পাশ থেকে উঠে গিয়ে মায়ের সঙ্গে মায়ের বিছানায় ঘুমিয়েছে। মায়ের অতি আদরে অতি নজরে অনেক ছেলেই বয়সে বড় হয়েও সত্যিকার বড় হয় না, স্বনির্ভর তো হয়ই না। মা পরনির্ভর বানিয়ে দেয় বলে বউএর সঙ্গেও পরনির্ভর জীবন যাপন করে।
তসলিমা বলেন, ঘরের কোনও কাজই করতে পারে না। কাপড় চোপড় পরার সময় নিজের শার্টটা. মোজাটা খুঁজে নিতে পারে না, খাবার টেবিলে বসে বাটি থেকে তরকারিটাও থালায় বেড়ে নিতে পারে না। বউদের সমস্যা হয় খুব। আবার এই বউরাও ছেলে জন্ম দিলে ওই একই কাজ করে, যেটা তাদের মা বা শাশুড়ি করতো। ছেলে-বাচ্চাদের কবে যে স্বনির্ভর আর দায়িত্ববান হতে দেবে মায়েরা! কবে যে নিজেরটা নিজেকে বুঝতে দেবে!
 

প্রবাস এর আরো খবর