শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮
logo
মিরসরাইয়ের পাহাড়ে লেবু চাষে স্বাবলম্বী কৃষকরা
প্রকাশ : ০৮ এপ্রিল, ২০১৭ ১৪:১৯:২৪
প্রিন্টঅ-অ+
চট্টলা ওয়েব
চট্টগ্রাম: মিরসরাইয়ের পাহাড়ি অঞ্চলে লেবু চাষে বিপ্লব ঘটিয়েছেন সেখানকার কৃষকরা। ফলনও ভালো হয়েছে। লেবু চাষ করে স্বাবলম্বী হয়েছেন অনেক কৃষক। এ ছাড়া খরচের তুলনায় লাভ বেশি হওয়ায় লেবু চাষে উৎসাহী হচ্ছেন স্থানীয় কৃষকরা।

জানা গেছে, উপজেলার ১০টি বাজারে দৈনিক কয়েক লাখ টাকার লেবু বেচাকেনা হয়ে থাকে। এ ছাড়া এখানকার চাহিদা মিটিয়ে ঢাকা, চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন শহরে সরবরাহ করা হয়। তবে একাধিক লেবু চাষি অভিযোগ করেন সিন্ডিকেটের কারণে তারা লেবুর সঠিক মূল্য পান না।

মিরসরাই কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, মিরসরাইয়ের পাহাড়ি অঞ্চলে এ বছর ৫৪ হেক্টর জমিতে লেবু চাষ করা হয়েছে। শুধু করেরহাট ইউনিয়নের চাষ হয়েছে ৩৮ হেক্টর লেবু। লেবু বাম্পার ফলন হওয়ার অনেক কৃষক লেবু চাষে উৎসাহিত হচ্ছে।

সরেজমিনে উপজেলার ১ নম্বর করেরহাট ইউনিয়নের কালাপানি এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, রাস্তার ধারে পাহাড়ের পাদদেশে সারি সারি লেবু বাগান। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে পাইকাররা এখানে ছুটে আসছে লেবু ক্রয় করতে। লেবু ক্রয়ের জন্য বাগানের পাশে নির্মাণ করা হয়েছে অস্থায়ী লেবু বিক্রির ঘর। পাইকাররা ওই ঘরে বসে চাষীদের সাথে লেবু বিক্রি করেন। চাষীদের কাছ থেকে লেবু ক্রয় করে পিকআপ যোগে পাইকাররা বিভিন্ন স্থানে নিয়ে যায়।

কালাপানি এলাকার লেবু চাষী জহির মিয়া জানান, তিনি এবছর ৫ হেক্টর জমিতে লেবু চাষ করেছেন। এতে তার ১৮ হাজার টাকা খরচ হয়েছে। ইতিমধ্যে তিনি ৩৫ হাজার টাকার লেবু বিক্রি করেছেন। এ ছাড়া বাগানে বর্তমানে যে লেবু আছে তার আরো ৩০ হাজার টাকা বিক্রি হতে পারে।

একই ইউনিয়নের সামনের খীল এলাকার চাষী দেলোয়ার হোসেন ও সাগর ত্রিপুরা জানান, তারা ১০ হেক্টর জমিতে লেবু চাষ করেছেন। এ বছর লেবুর বাম্পার ফলন হয়েছে। তবে সিন্ডিকেটের কারণে কৃষকরা উপযুক্ত দাম পাচ্ছে না বলে তারা অভিযোগ করেন।

আরো জানান, প্রতিদিন পাহাড়ি অঞ্চলে উৎপাদিত লেবু ক্রয় বিক্রয়ের জমজমাট হাট বসে। সকাল থেকে বস্তা ও বাঁশের তৈরি খাঁচায় ভর্তি লেবু মাথায় নিয়ে কৃষকরা সামনেখীল এলাকায় পাহাড়ের পাদদেশে ঢালু জায়গায় লেবু নিয়ে আসে।

কৃষকরা জানায়, সামনের খীল ছাড়াও উপজেলার করেরহাট, বারইয়ারহাট, কালাপানি, কয়লাও বড়োদারোগার হাট, মিঠাছরা বাজার, বড়তাকিয়া, বড়দারোগাহাট সহ ১০টি বাজারে প্রতিদিন কয়েক লক্ষ টাকার লেবু বিক্রি হয়ে থাকে। পাইকারি প্রতি শত লেবু ১২০ থেকে ২৫০ টাকা করে বিক্রি হয়ে থাকে। অথচ খুচরা বাজারে প্রতিটি লেবু বিক্রি হচ্ছে ৫ থেকে ১০ টাকায়।

চট্টগ্রামের কর্ণফুলী মার্কেটের লেবু ব্যবসায়ী তোবারক হোসেন জানান, চট্টগ্রাম শহরে মিরসরাইয়ের লেবুর কদর রয়েছে। তাই তিনি খুব ভোরে লেবু কেনার জন্য মিরসরাইয়ে কালাপানি বাজারে এসেছেন। ইতিমধ্যে ৪৫ হাজার টাকার লেবু ক্রয় করেছেন।

করেরহাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এনায়েত হোসেন বলেন, করেরহাটের পাহাড়ি অঞ্চলে বিপুল পরিমাণ লেবু চাষ হয়ে থাকে। লেবু চাষ করে অনেক স্বাবলম্বী হয়েছেন বরে তিনি জানান।

মিরসরাই উপজেলা উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা নুরুল আলম জানান, মিরসরাইয়ে সবচেয়ে বেশি লেবু চাষ হয় করেরহাট ইউনিয়নের পাহাড়ী অঞ্চলে। পাহাড়ি অঞ্চল লেবু চাষের জন্য বেশি উপযোগী। এ বছর উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে প্রায় ৫৪ হেক্টর জমিতে লেবু চাষ করা হয়েছে।
 

২য় রাজধানী এর আরো খবর