সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০
logo
সাকার জন্মস্থানে মিষ্টি বিতরণ, আনন্দ মিছিল
প্রকাশ : ২৯ জুলাই, ২০১৫ ২১:০৭:৫১
প্রিন্টঅ-অ+
চট্টলা ওয়েব

চট্টগ্রাম: আপিল বিভাগের চূড়ান্ত রায়ে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর ফাঁসির রায় বহাল থাকায় চট্টগ্রামে আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ করেছে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, চট্টগ্রাম গণজাগরণ মঞ্চ, একাত্তরের ঘাতক নির্মূল কমিটিসহ মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের বিভিন্ন সংগঠন। এমনকি কুখ্যাত এ যুদ্ধাপরাধীর জন্মস্থান রাউজানেও শত শত মানুষ রাস্তায় নেমে আনন্দ প্রকাশ করেছে। একে অপরের মুখে মিষ্টি মুখ করিয়েছে।
তারা বলছেন, এই রায়ের ফলে রাউজনসহ পুরো চট্টগ্রাম কলঙ্কমুক্ত হবে। যিনি রাউজান, রাঙ্গুনিয়া ও ফটিকছড়ি থেকে ৬ বার বিভিন্ন দলের হয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন।
বুধবার সকালে রায় ঘোষণার পর পৃথকভাবে বিভিন্ন সংগঠন এ আনন্দ উচ্ছাস প্রকাশ করে। সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করার আহ্বান জানিয়ে আনন্দ মিছিল ও সমাবেশে বক্তারা বলেন, সাকার মৃত্যুদণ্ডের রায় আপিল বিভাগেও বহাল থাকায় চট্টগ্রাম কলঙ্কমুক্ত হয়েছে। সাকা চৌধুরী হাজার হাজার মুক্তিকামী সাধারণ মানুষকে হত্যা করেছে। চট্টগ্রামের গুডস হিলকে ব্যবহার করা হতো টর্চার সেল হিসেবে। এখন সেই গুডস  হিলকে মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি জাদুঘর হিসেবে গড়ে তুলতে হবে।
মুক্তিযোদ্ধা সংসদ : মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে সালাউদ্দিন কাদের সাকা চৌধুরীর ফাঁসির রায় ঘোষণার পর সকাল ১০টায় চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব চত্ত্বরে সমাবেশ করে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ চট্টগ্রাম জেলা ও মহানগর ইউনিট। সমাবেশে ব্যক্তব রাখেন জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মো. শাহাবুদ্দিন, কমরেড শাহ আলম, রাউজান উপজেলা চেয়ারম্যান এহেসানুল হায়দার চৌধুরী বাবুল, মহানগর ডেপুটি কমান্ডার শহীদুল ইসলাম সৈয়দ, জেলা ডেপুটি কমান্ডার মাহবুবুল আলম চৌধুরী, মুক্তিযোদ্ধা আলীমুল্লাহ, সান্টু লাল সাহা, নাসির উদ্দিন প্রমুখ। সমাবেশ শেষে একটি আনন্দ মিছিল প্রেসক্লাব চত্ত্বর থেকে শুরু হয়ে আন্দরকিল্লা প্রদক্ষিণ করে চেরাগী মোড়ে এসে শেষ হয়।
চট্টগ্রাম গণজাগরণ মঞ্চ : সালাউদ্দিন কাদের সাকা চৌধুরীর ফাঁসির রায় বহাল রাখায় গণজমায়েত, আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ করেছে গণজাগরণ মঞ্চের কর্মীরা।  সকাল সাড়ে আটটা থেকে চেরাগী মোড়ে জমায়েত হতে থাকে গণজাগরণ মঞ্চের কর্মীরা। সকাল ১০টায় আনন্দ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।  সমাবেশে বক্তব্য রাখেন মুক্তিযোদ্ধা শাহ আলম, কাজী আবছার উদ্দিন, তপন দস্তিদার, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান, চট্টগ্রাম গণজাগরণ মঞ্চের সদস্য সচিব ডা. চন্দন দাশ, সমন্বয়কারী শরীফ চৌহান, রাশেদ হাসান, শলীল চৌধুরী, অনুপ বিশ্বাস, কবি আশীষ সেন, অমিতাপ সেন, ছাত্র ইউনিয়ন জেলা কমিটির সভাপতি শিমুল বৈষ্ণব, খেলাঘর সভাপতি মোরশেদ আলম চৌধুরী, রুবেল দাশ প্রিন্স, সালমা জাহান মিলি, শিমুল দত্ত, আলাউদ্দিন খোকন, প্রিতম দাশ।
একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি: ফাঁসির রায় বহাল থাকায় চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব চত্ত্বরে সমাবেশ করেছে একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি চট্টগ্রাম শাখা। সংগঠনের সভাপতি অ্যাডভোকেট সীমান্ত তালুকদারের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন রাউজান উপজেলা চেয়ারম্যান এহেসানুল হায়দার চৌধুরী বাবুল, কবি ও লেখক শওকত বাঙালি, স্বপন সেন, মো. জোবায়ের, বেলাল নুরী, মাহসুফ উদ্দিন মাসুম, আবু সাদাত, নাজমুল আলম খান প্রমুখ।
এদিকে নিজ জন্মস্থান রাউজানেও ফাঁসি রায় বহলা থাকার খবরে দক্ষিন রাউজনে মুক্তিযোদ্ধা, ছাত্র-জনতা আনন্দ মিছিল, মিষ্টি বিতরণ করেছে। দক্ষিণ রাউজনের প্রাণ কেন্দ্র নোয়াপাড়ায় মুক্তিযোদ্ধা, ছাত্র-জনতার এক একটি মিছিল এসে এক মহা মিলনের পরিণত হয়। সবার মুখে আনন্দের হাসি। সবাই একে অপরের মুখে মিষ্টিমুখ করান। বিতরণ করেন কেজি কেজি বৃষ্টি।
সংক্ষিপ্ত এক সমাবেশে বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা সিজার চেয়ারম্যান বলেন ‘আমরা নয় মাস যুদ্ধ শেষ করে যে আনন্দ পাইনি আজ আমার মনের তার চেয়েই বেশি আনন্দের জোয়ার বয়ে যাচ্ছে। মনে হচ্ছে আজ আমরা আবার স্বাধীন হয়েছি।’
সমাবেশে নোয়াপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান দিদারুল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ, বাগোয়ান ইউপি চেয়ারম্যান ভূপেশ বড়–য়া, কদলপুর ইউপি চেয়ারম্যাান মোজাহের হোসেন লিংকন, মুক্তিযোদ্ধা সুনিল চক্রবর্তী, মনজুর হোসেন, জাফর আহম্মদ, জাহাঙ্গীর সিকদার, আবুল বশর বাবুল, দুলাল বড়–য়া, জসিম উদ্দীন, বাবুল মেম্বার, মোঃ আরিফ, মোশারফ হোসেন ছোটন, এস.এম.জাহাঙ্গীর আলম সুমন, দক্ষিণ রাউজান ছাত্রলীগের সভাপতি আবদুল জব্বার সোহেল, সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক দিদারুল আলম, মহিউদ্দীন ইমন, ম্যালকম চক্রবর্তী, সাইফুদ্দী সাইফ।

২য় রাজধানী এর আরো খবর